প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের কাছে এলাকাবাসীর অভিযোগ: রামুতে সড়ক জবর-দখল করে স্থাপনা নির্মাণ করছে প্রভাবশালী চক্র

রামু প্রতিনিধিঃ
রামুর সদর ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের হাজারীকুল গ্রামের শত শত জনসাধারণের চলাচলের একমাত্র সড়কটি জবর-দখলে মেতে উঠেছে একাধিক প্রভাবশালী চক্র। এ সড়ক দিয়ে হাজারীকুল বোধিরত্ন বৌদ্ধ বিহার ও সত্যপ্রিয় বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্র, হাজারীকুল মসজিদসহ একাধিক ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে যাতায়াত করেন এলাকাবাসী সহ আশপাশের হাজার-হাজার মানুষ। জবর-দখলের পাশাপাশি সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার করা হচ্ছে না। এসব কারণে ওই এলাকার জনসাধারণ, বৌদ্ধ বিহারে আসা পূণ্যার্থী, পর্যটক সহ সর্বস্তুরের মানুষ অবর্ণনীয় দূর্ভোগের শিকার হচ্ছে। সড়কটি জবর-দখলমুক্ত, বর্ধিতকরণসহ সংস্কারের দাবিতে এবার স্বোচ্ছার হয়েছে হাজারীকুল সহ আশপাশের জনসাধারণ।

সড়ক জবর-দখলের ঘটনায় ক্ষুব্দ জনসাধারণ এ নিয়ে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য রামু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সোহেল সরওয়ার কাজল, উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমা এবং ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম ভূট্টোর কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

বোধিরত্ন বৌদ্ধ বিহার ও সত্যপ্রিয় বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্রের পরিচালক ছাড়াও স্থানীয় বাসিন্দা বিনোধ বড়ুয়া, জসিম উদ্দিন, সুখেন্দু বিকাশ বড়ুয়া সহ এলাকার শত শত জনতা বিভিন্ন দপ্তরে দেয়া অভিযোগে স্বাক্ষর করেছেন।

এসব অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে- হাজারীকুল গ্রামে মুসলিম, হিন্দু, বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের মানুষ শান্তি-সম্প্রীতি বজায় রেখে বসবাস করে আসছে। কিন্তু স্থানীয় একাধিক প্রভাবশালী ব্যক্তি গ্রামের চলাচলের একমাত্র সড়কটির দুপাশে জবর-দখল করে স্থাপনা নির্মাণ অব্যাহত রেখেছে। এ কারণে বর্তমানে পুরো গ্রামে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এলাকাবাসী আরো জানান- উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমা সরেজমিন পরিদর্শন করে তাদের সমস্যা সহসা সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন।

এছাড়াও ফতেখাঁরকুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সড়কটি জবর-দখলমুক্ত করে সংস্কারের জন্য প্রাণপন চেষ্টা চালাবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন।

এলাকাবাসী সড়কটি জবর-দখলমুক্ত করে সংস্কার ও ড্রেন নির্মাণে সংশ্লিষ্ট সকলের জোরালো হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।