স্কুল-কলেজে প্রতিনিধি নির্বাচন স্থগিতের নির্দেশ

অনলাইন ডেস্কঃ
করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে দেশের সব স্কুল-কলেজ আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটি ও গভনিং বডির নির্বাচন স্থগিত রাখতে জরুরি নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

এরইমধ্যে যদি কোনো প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটি/গভর্নিং বডি নির্বাচনী কার্যক্রম শুরু করা হয়ে থাকে, তবে সেই কার্যক্রমও জরুরিভিত্তিতে স্থগিতের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) ঢাকা শিক্ষা বোর্ড থেকে এ সংক্রান্ত পৃথক দুটি জরুরি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জারি করা নির্দেশনায় বলা হয়েছে, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নির্দেশনা মোতাবেক সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে। করোনা ভাইরাসজনিত রোগ কোভিড-১৯ এর বিস্তার রোধকল্পে যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন সংক্রান্ত কার্যক্রম চলমান রয়েছে, সেগুলোর নির্বাচন সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রম আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত স্থগিত করা হলো। যদি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটির মেয়াদ বাড়ানো হয়, সেক্ষেত্রে স্বংক্রিয়ভাবে এ নিষেধাজ্ঞা ছুটিকালীন সময় পর্যন্ত বহাল থাকবে। শিক্ষা বোর্ডের আইন অনুযায়ী সেই ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

দেশের সব স্কুল-কলেজের প্রধান শিক্ষক ও অধ্যক্ষদের অবগতির জন্য জরুরি এ নির্দেশনা জারি করা হয়েছে উল্লেখ করে বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের জারি করা গত ২২ জানুয়ারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত ১১ নির্দেশনা বাস্তবায়নে যথাযথভাবে প্রতিপালন করার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

এদিকে গত শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) মন্ত্রিপরিষদের এক বিজ্ঞপ্তিতে আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখার নির্দেশনা জারি করা হয়।

গতকাল শনিবার শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, দেশের বিভিন্ন জেলার শিশুরা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রাখার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো নিজেরা সিদ্ধান্ত নেবে। সংক্রমণ পরিস্থিতি শিথিল হলে আবারও স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।

সূত্রঃ জাগোনিউজ