আক্রান্তের সংস্পর্শ ছাড়াও যেভাবে করোনা হতে পারে

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ
করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। করোনাভাইরাস সাধারণত একজন মানুষ থেকে অন্য মানুষে খুব সহজেই পৌঁছাতে পারে। করোনা ছড়ানোর মূল কারণ হলো আক্রান্তের মুখ থেকে বেরনো ড্রপলেট। যা করোনা আক্রান্ত

করোনাভাইরাস আক্রান্তের মুখ, নাক থেকে বের হওয়া তরল বিন্দু থেকে ছড়াতে পারে। কোনো সুস্থ ব্যক্তির শরীরে ড্রপলেট ঢুকলে তবেই ছড়ায় এই রোগ।

অর্থাৎ এভাবে রোগ ছড়াতে গেলে আপনার সঙ্গে একজন করনো আক্রান্তের সাক্ষাত হতে হবে। তার সামনে থাকতে হবে আপনাকে।

তবে অনেক সময়ই দেখা যাচ্ছে, সব ধরনের করোনাবিধি মানার পরও কিংবা সংক্রমিত মানুষের সংস্পর্শে না আসার পরও মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন এই রোগে। তাহলে কীভাবে তারা সংক্রমিত হচ্ছেন?

> করোনা শরীরে প্রবেশের পরপরই শরীরে উপসর্গ প্রকাশ পায় না। লক্ষণ বের হতে ২-৩ দিন সময় লাগে।

ওই সময়ের মধ্যেই আক্রান্তের সঙ্গে মাস্ক ছাড়া কথা বলার সময় মুখ থেকে বের হওয়া ড্রপলেটের কারণে আক্রান্ত হতে পারেন আপনিও।

গবেষণা বলছে, করোনা প্রি সিম্পটোমেটিক মানুষও করোনার ছড়াতে পারে দ্রুত। তাই চিন্তার অবশ্যই কারণ আছে।

> যেসব স্থান বেশি ঘনবসতিপূর্ণ সেখানে করোনা খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে। কারণ এক প্রকিবেশির কাছ থেকে অন্যজনের শরীরে তার আরেকজনের শরীরে এভাবেই ছড়ায় করোনাভাইরাস।

> বর্তমানে অনেকের শরীরে করোনা বাসা বাঁধছে। তবুও নানা কারণে তাদের শরীরে কোনো লক্ষণ দেখা দিচ্ছে না। এদেরকে বলা হয় অ্যাসিম্পটোমেটিক কেরিয়ার।

এক্ষেত্রে রোগীর লক্ষণ দেখা না দেওয়ায় তারা করোনা টেস্টও করেন না। ফলে দেখা তার মাধ্যমে অন্য কেউ খুব সহজেই আক্রান্ত হতে পারেন।

তার শরীরে লক্ষণ দেখা না দিলেও নতুন রোগীর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকলে মৃত্যুঝুঁকি রয়েছে।

> করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন খুবই সংক্রামক। দ্রুত এক মানুষ থেকে অন্য মানুষে ছড়িয়ে পড়তে পারে এই ওমিক্রন। এক্ষেত্রে ওমিক্রনের কারণেও বহু মানুষ কোনও কনট্যাক্ট হিস্ট্রি ছাড়াও ওমিক্রনে আক্রান্ত হচ্ছেন।

কী করবেন করোনা মোকাবিলায়?

ব্যক্তিগত সুরক্ষা বজায় রাখা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই। এজন্য মাস্ক পরুন, স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন ও যতটা সম্ভব বাড়িতে থাকুন। যারা এখনো টিকা নেননি দ্রুত গ্রহণ করুন।

সূত্রঃ জাগোনিউজ