‘এই জয়ে গর্ব করতে পারে বাংলাদেশ’

ক্রীড়া ডেস্কঃ
সিরিজ শুরুর আগে বাংলাদেশের পক্ষে বাজি ধরার লোক খুব একটা ছিল না। এর যৌক্তিক কারণও ছিল। এক দিকে ঘরের মাঠে দারুণ রেকর্ড নিউ জিল্যান্ডের, অন্য দিকে বাংলাদেশের রেকর্ড বেশ বাজে। তিন সংস্করণ মিলিয়ে হেরেছে টানা ৩২ ম্যাচ। সেই দলটিই কিনা টেস্ট চ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে দিল তাদের আঙিনায়! অভাবনীয় এই জয়ে বাংলাদেশ দল ভাসছে স্তুতির জোয়ারে।

মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্টে বুধবার ৮ উইকেটে জিতেছে বাংলাদেশ। পঞ্চম ও শেষ দিন ৪০ রানের লক্ষ্য ছুঁয়ে এগিয়ে গেছে দুই ম্যাচের সিরিজে। সঙ্গে থামিয়েছে দেশের মাটিতে নিউ জিল্যান্ডের ১৭ টেস্টের অজেয় যাত্রা।

২১ বছরে ৩২ ম্যাচ হারার পর নিউ জিল্যান্ডে স্বাগতিকদের বিপক্ষে কোনো ম্যাচ জিতল বাংলাদেশ। দেশের মাটিতে সবশেষ আট টেস্ট সিরিজ জেতা কিউইদের সামনে এখন হার এড়ানোর চ্যালেঞ্জ।

নিউ জিল্যান্ড যেকোনো সফরকারী দলের জন্যই কঠিন জায়গা, বিশেষ করে উপমহাদেশের দলগুলোর জন্য। গত ১০ বছরে এখানে টেস্ট জিততে পারেনি তারা। তারও অবসান হলো বাংলাদেশের জয়ে।

দুই দলের শক্তি, সামর্থ্য, অভিজ্ঞতা ও সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সের যে ব্যবধান তাতে বাংলাদেশের জয় সব দিক থেকেই অভাবনীয়। তাহলে কি সফরকারীদের হালকা করে দেখেছিল নিউ জিল্যান্ড। তাতে এমন ফল, এমন কথা স্রেফ উড়িয়ে দিয়েছেন সাবেক নিউ জিল্যান্ড অধিনায়ক স্টিভেন ফ্লেমিং।

“নিউ জিল্যান্ডের এই টেস্ট ম্যাচটিকে হালকাভাবে নেওয়ার যে কোনো আলোচনাই বাজে কথা। বাংলাদেশ একটি চমৎকার টস জিতেছে এবং একটি দুর্দান্ত টেস্ট খেলেছে। ইতিহাস গড়ার জন্য বাংলাদেশ দল এবং কোচিং স্টাফদের অভিনন্দন। সত্যিই দ্বিতীয় টেস্টের জন্য উন্মুখ হয়ে আছি।”

ছুটি নিয়ে এই সফরে না যাওয়া অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে ছুঁয়ে গেছে ঐতিহাসিক এই জয়ের মুহূর্ত। টুইটারে সতীর্থদের প্রতি উচ্ছ্বসিত প্রশংসা ঝরে পড়েছে তার কণ্ঠে।

“আমাদের ফাস্ট বোলাররা অসামান্য পারফরম্যান্স দেখিয়েছে এবং সব ব্যাটসম্যানরা সমানভাবে ভালো খেলেছে। দিনটি উপভোগ কর। সব কৃতিত্ব তোমাদের প্রাপ্য। বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য বছরটি কি দারুণভাবেই না শুরু হলো। অধিনায়ক, খেলোয়াড় ও কোচিং স্টাফদের অনেক অভিনন্দন।”

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাবেক পেসার ও জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার ইয়ান বিশপের মতে, এর চেয়ে ভালোভাবে বছরটা শুরু করতে পারতো না বাংলাদেশ।

“শুভকামনা বাংলাদেশের বাঘেরা। ২০২২ এর সূচনায় এটা দারুণ অর্জন।”

সাবেক ভারতীয় ব্যাটসম্যান ভিভিএস লক্ষ্মণ বলেন, বিরুদ্ধ কন্ডিশনে পাওয়া বাংলাদেশের এই অবিশ্বাস্য জয়ের কীর্তি বহু দিন মনে থাকবে।

“মাউন্ট মঙ্গানুইতে ইতিহাস সৃষ্টি করার জন্য বাংলাদেশকে অভিনন্দন! টেস্টে ৮ উইকেটে জয় পাওয়া এবং নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তাদের প্রথম টেস্ট জয় পাওয়াটা অনুপ্রেরণাদায়ক এবং একটি অবিশ্বাস্য কৃতিত্ব। আমি নিশ্চিত, এই জয়টি অনেক বছর মনে থাকবে।”

সাবেক নিউ জিল্যান্ড বোলার ও জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার ড্যানি মরিসন স্মরণীয় জয়ের জন্য অভিনন্দন জানিয়েছেন ইবাদত-তাসকিনদের।

“মনে রাখার মতো একটি দিনের কথা বলছি… বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য জাদুকরী মুহূর্ত। ইতিহাস তৈরি হয়েছে।”

শ্রীলঙ্কার টেস্ট অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নের চোখে বাংলাদেশের জয়টি ঐতিহাসিক।

“নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে ঐতিহাসিক জয়ের জন্য বাংলাদেশকে অভিনন্দন…..ভাল খেলেছো।”

ভারতের কিপার-ব্যাটসম্যান দিনেশ কার্তিক মনে করেন, এই জয়টি বাংলাদেশ দলকে বিশ্বাস দেবে যে, ভালো উইকেটে খেললে তাদের পক্ষে দারুণ কিছু অর্জন করা সম্ভব।

“শুভকামনা বাংলাদেশ, টেস্ট চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে জেতা একটি দুর্দান্ত অর্জন। আশা করি তারা বুঝতে পারবে যে, ব্যাটসম্যান ও বোলার উভয়কে সাহায্য করে এমন কিছু ভালো উইকেটে খেললে তারা কী অর্জন করতে পারে। অভিনন্দন।”

বাংলাদেশ দলের প্রশংসায় যোগ দিয়েছেন ইংল্যান্ডের অ্যাশেজ জয়ী অধিনায়ক মাইকেল ভনও। টুইটারে লিখেছেন, “ব্রিলিয়ান্ট বাংলাদেশ।”

সাবেক ভারত অলরাউন্ডার ইরফান পাঠানের মতে, নিউ জিল্যান্ডের মাটিতে তাদের টেস্টে হারানোর কঠিন চ্যালেঞ্জে উতরে যাওয়ায় বাহবা প্রাপ্য বাংলাদেশ দলের।

“নিউজিল্যান্ডে জেতা যেকোনো সফরকারী দলের জন্যই কঠিন। মাউন্ট মঙ্গানুইতে এই পাহাড় জয় করা কৃতিত্বের জন্য শুভকামনা! অভিনন্দন বাংলাদেশ।”

সাবেক শ্রীলঙ্কা অলরাউন্ডার ও ধারাভাষ্যকার রাসেল আর্নল্ডের কাছে এই জয়টি বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য একটি বিশেষ অর্জন।

“অসাধারণ বাংলাদেশ। নিউ জিল্যান্ডের মাটিতে তাদের সম্পূর্ণভাবে পরাস্ত করাটা সহজ নয়.. সত্যিই অসাধারণ.. মনে রাখার মতো একটি জয়। অভিনন্দন।”

ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) তাদের টুইটার একাউন্টে একটি ভিডিও শেয়ার করেছে, যেখানে ড্রেসিংরুমে বাংলাদেশ দলের সদস্যরা গান গেয়ে উদযাপন করছেন। ওই ভিডিওটি নজরে পড়েছে ইংল্যান্ডের ফুটবল কিংবদন্তি গ্যারি লিনেকারের। তিনি রিটুইট করে লিখেছেন, “অসাধারণ, অভিনন্দন।”

শ্রীলঙ্কার সাবেক কোচ মিকি আর্থারের মনে করেন, এই ফল নিয়ে গর্ব করতে পারে বাংলাদেশ।

“কি অসাধারণ এক চেষ্টা বাংলাদেশের। এই জয় নিয়ে তোমরা গর্বিত হতে পার।”

সূত্রঃ বিডিনিউজ