কোভিড: ১০ কোটি ডোজ টিকার ঘর পেরোলো বাংলাদেশ

অনলাইন ডেস্কঃ
দেশে করোনাভাইরাসের টিকাদান কার্যক্রম শুরুর ১০ মাসের মাথায় ১০ কোটি ডোজের বেশি টিকা দেওয়া হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, বুধবার পর্যন্ত সারাদেশে ১০ কোটি ২ হাজার ১২৩ ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে অন্তত এক ডোজ পেয়েছেন ৬ কোটি ২৭ লাখ ৩৩ হাজার ৭৩৯ জন। তাদের মধ্যে ৩ কোটি ৭২ লাখ ৬৮ হাজার ৩৮৪ জন দুই ডোজ নিয়ে কোর্স পূর্ণ করেছেন।

অর্থাৎ, দেশের মোট জনসংখ্যার ৩৫ শতাংশের বেশি মানুষ অন্তত এক ডোজ টিকা পেয়েছেন। আর বাংলাদেশের ২২ শতাংশের বেশি মানুষ পূর্ণ ডোজ পেয়েছেন।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ে ২০২০ সালের ৮ মার্চ। প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়ার ১১ মাস পর এ বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি সারাদেশে করোনাভাইরাসের টিকাদান শুরু করে সরকার।

তার আগে ২৭ ফেব্রুয়ারি ২৬ জনের ওপর অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনাভাইরাসের টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ হয়।

প্রথমে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি টিকা দিয়ে শুরু হলেও বর্তমানে ফাইজার-বায়োএনটেক, সিনোফার্ম এবং মডার্নার টিকা দেওয়া হচ্ছে দেশে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, বুধবার পর্যন্ত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ১ কোটি ৮৩ লাখ ৭২ হাজার ৫৪৯ ডোজ, ফাইজারের ৩১ লাখ ১৬ হাজার ৬৯৫ ডোজ, সিনোফার্মের ৭ কোটি ৩১ লাখ ৭২ লাখ ৩৬০ ডোজ এবং মডার্নার ৫৩ লাখ ৪০ হাজার ৫১৯ ডোজ টিকা পেয়েছে বাংলাদেশের মানুষ।

বুধবার পর্যন্ত ৭ কোটি ২৫ লাখ ৩৬ হাজারের বেশি মানুষ করোনাভাইরাসের টিকার জন্য নিবন্ধন করেছেন।

দেশের মোট জনসংখ্যার ৮০ শতাংশ, অর্থাৎ ১৩ কোটি ৮২ লাখ ৪৭ হাজার ৫০৮ জন মানুষকে নতুন করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়ার খসড়া পরিকল্পনা নিয়ে কাজ শুরু করেছিল সরকার। এখন ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদেরও টিকার আওতায় আনতে কাজ চলছে।

সূত্রঃ বিডিনিউজ