ধরে রাখার মতো হাঁটার অভ্যাস যেভাবে গড়বেন

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ
যে কোনো নতুন অভ্যাসের মতো হাঁটাহাঁটির অভ্যাস গড়ে তুলতেও প্রয়োজন সময় এবং চেষ্টা।

যুক্তরাষ্ট্রের হাঁটাহাঁটি বিষয়ক এবং ‘এসিই’ প্রশিক্ষক মিশেল স্ট্যানটেন বলেন, “হাঁটার রুটিন তৈরির আগে এর পেছনে আপনার অনুপ্রেরণার উৎস কী সেটা জানা জরুরি। ভর দুপুরে জুতা পরে পার্কে হাঁটতে যাওয়ার পেছনে কোনো নির্দিষ্ট কারণ যদি আপনি খুঁজে না পান তবে যাওয়ার কোনো মানে নেই।”

‘ওয়েলঅ্যান্ডগুড ডটকম’য়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে তিনি আরও বলেন, “গবেষণা বলে ১৫ মিনিট হাঁটার কারণে বাড়ে সৃজনশীলতা, সমস্যা সমাধান করার ক্ষমতা। হাঁটলে মন মেজাজ ভালো হয়, মানসিক অস্বস্তি কমে। তাই ভালো থাকতে হলে হাঁটতে হবে এমনটা না ভেবে হাঁটলে কী উপকার পাবেন সেটা ভাবলেই বেশি অনুপ্রেরণা পাবেন।”

হাঁটার অভ্যাসটা ধরে রাখতে হলে কিছু পরামর্শ মেনে চলতে বলছেন স্ট্যানটেন।

সামান্য দিয়ে শুরু: গবেষণা বলে সামান্য পরিমাণ ব্যায়ামও যদি নিয়মিত হয় তবে জীবন পাল্টে দেওয়ার মতো প্রভাব রাখতে সক্ষম। হাঁটা যখন শুরু করছেন প্রথমে পাঁচ কিংবা ১০ মিনিট থেকে শুরু করুন। এতে আপনার প্রতিদিন কোনো উল্লেখযোগ্য মাত্রায় ব্যায়াম হবে না ঠিক তবে প্রতিদিন হাঁটার অভ্যাসটা তৈরি হবে। সেখান থেকে বাড়াতে হবে হাঁটার গতি, সময়, দূরত্ব ইত্যাদি।

যে ইঙ্গিত মনে করিয়ে দেবে: স্ট্যানটেন বলেন, “যে কেনো অভ্যাসে গড়ে ওঠার জন্য একটা নির্দিষ্ট ঘটনা প্রয়োজন যা ওই অভ্যাসটাকে সক্রিয় করবে। জীবনের দৈনন্দিন রুটিনের একটা কাজের বদলে সেখানে হাঁটাহাঁটি বসিয়ে তা বেশিদিন ধরে রাখা যাবে না। তবে প্রতিদিন করা হয় এমন একটা কাজের সঙ্গে যদি হাঁটতে বের হওয়ার সম্পর্ক তৈরি করা যায় তবে তা অভ্যাসে পরিণত হওয়ার সম্ভাবনা জোরালো হয়।”

যেমন, দুপুরে খাওয়ার পর এঁটো বাসনগুলো সিঙ্ক’য়ে রেখেই হাঁটতে বের হয়ে যাবেন, এটাই আপনার অভ্যাস। কিংবা প্রতিদিন সকাল ১১টার মিটিংটা শেষ করেই আপনি হাঁটতে যাবেন।

দৃশ্যপটে পরিবর্তন: স্ট্যানটেন বলছেন, “প্রতিদিন একই স্থানে হাঁটলে আপনার তাতে বিরক্তি আসতে পারে। স্থান পরিবর্তন করতে পারেন। ছুটির দিন দূরে কোথাও হাঁটতে যেতে পারেন। হাতে সময় না থাকলে প্রতিদিন যেখানে হাঁটা শেষ করে, সেখান থেকেই শুরু করতে পারেন। গতি বাড়াতে পারেন, বিরতি পথ দিয়ে দিয়ে হাঁটতে পারেন।”

হাঁটার সঙ্গে প্রিয় কিছু জুড়ে নেওয়া: টিভিতে প্রিয় অনুষ্ঠানটা দেখা সময় ট্রেডমিল’য়ে হাঁটতে পারেন। এতে ওই অনুষ্ঠান দেখার সঙ্গে হাঁটার অভ্যাসটা জুড়ে যাবে। কোনো প্রিয় ‘পডকাস্ট’ থাকলে সেটা হাঁটার সময়ের জন্য বাঁচিয়ে রাখতে পারেন। এতে হাঁটার অভ্যাসটা জোরালো হবে।

সূত্রঃ বিডিনিউজ