অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা ৯ সেপ্টেম্বরের মধ্যে শেষ করার নির্দেশ

অনলাইন ডেস্কঃ
অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনাভাইরাসের টিকার প্রথম ডোজ যারা নিয়েছেন, তারা যে কোনো কেন্দ্র থেকে এই টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিতে পারবেন।

তবে এক্ষেত্রে টিকাগ্রহীতাকে কেন্দ্রে গিয়ে টিকা কার্ড দেখাতে হবে।

আগামী ৯ সেপ্টেম্বরের মধ্যেই বিভিন্ন কেন্দ্রে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া শেষ করার নির্দেশনা দিয়ে একথা বলেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচির থেকে বিভিন্ন সিটি করপোরেশনকে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, “গত ৭ ফেব্রুয়ারি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনাভাইরাসের টিকাদান হলেও টিকা সরবরাহে স্বল্পতার কারণে নিবন্ধনকারী জনগোষ্ঠীর একটি বড় অংশ প্রথম ডোজ নেওয়ার পর দ্বিতীয় ডোজের জন্য অপেক্ষায় আছেন। বর্তমানে এই টিকার পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকায় দ্বিতীয় ডোজের জন্য অপেক্ষমাণ জনগণকে দ্রুত এই টিকা দেওয়ার এই পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন।”

অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন, কিন্তু দ্বিতীয় ডোজ এখনও পাননি, এমন ব্যক্তির সংখ্যা ৫ লাখ ৪২ হাজার।

চিঠিতে বলা হয়েছে, স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারী স্বাস্থ্য পরির্দশক, স্বাস্থ্য সহকারী ও পরিবার কল্যাণ সহকারীরা বাড়ি পরিদর্শনের সময় দ্বিতীয় ডোজ টিকা থেকে বাদ পড়া ব্যক্তিদের টিকার কথা জানাবেন এবং দ্রুত টিকা নিতে উৎসাহিত করবেন।

সরবরাহ করা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা থেকে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়ার পাশাপাশি প্রথম ডোজ টিকাও দিতে হবে এবং আগামী ৯ সেপ্টেম্বরের মধ্যে অবশ্যই প্রথম ডোজের টিকা দেওয়া শেষ করতে হবে।

ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনাভাইরাসের টিকা দিয়ে দেশে টিকাদান শুরু হয়।

সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে বাংলাদেশের কেনা টিকার মধ্যে এসেছিল ৭০ লাখ ডোজ, আর ভারতের উপহার হিসেবে পাওয়া যায় একই টিকার ৩২ লাখ ডোজ। সব মিলিয়ে ১ কোটি ২ লাখ ডোজ।

ভারত থেকে তিন কোটি ডোজ টিকা কেনার চুক্তি করলেও টিকা না আসায় গত ২৫ এপ্রিল অক্সফোর্ডের টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ফলে তখন প্রথম ডোজ পাওয়া ১৪ লাখ ৩৯ হাজার ৮২৪ জন দ্বিতীয় ডোজ নিয়ে অনিশ্চয়তায় পড়ে।

এরপর কোভ্যাক্সের আওতায় জাপান থেকে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ৩০ লাখ ৫৯ হাজার ২০০ ডোজ টিকা আসে।

তা পাওয়ার পর অগাস্টের প্রথম সপ্তাহে অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া শুরু হয়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে, মঙ্গলবার পর্যন্ত ৫৮ লাখ ৬৬ হাজার ৩০১ জন অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন। তাদের মধ্যে ৫৩ লাখ ২৩ হাজার ৭২৯ জন দ্বিতীয় ডোজ পেয়েছেন।

সূত্রঃ বিডিনিউজ