ঈদগাঁওতে যুবলীগের জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় এমপি কমল

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ
কক্সবাজারের নবগঠিত ঈদগাঁও উপজেলার ৫ ইউনিয়ন যুবলীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে কক্সবাজার-৩(সদর-রামু-ঈদগাঁও) আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল বলেছেন- বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙ্গালীকে বাংলা ভাষা ও বাংলাদেশ দিয়েছেন।

মাত্র সাড়ে তিন বছরের শাসনকালে বাংলাদেশকে আধুনিক দেশ হিসেবে গড়ে তোলার উদ্যোগ নিয়ে এগিয়ে গিয়েছিলেন।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট রাজনীতির কলংকিত ব্যক্তি খন্দকার মোশতাক ও ইতিহাসের ঘৃনিত ব্যক্তি মেজর জিয়াউর রহমানরা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে নৃশংসভাবে হত্যা করেছিল। পরবর্তীতে মেজর জিয়া বিএনপি নামক একটি রাজনৈতিক সংগঠন প্রতিষ্ঠা করে। যেটি আইনানুযায়ী সম্পুর্ণ অবৈধ সংগঠন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যায় জিয়াউর রহমান যে জড়িত বিভিন্ন খুনিদের বক্তব্য এবং নানা পর্যালোচনার মাধ্যমে তা আজ প্রমানিত।

আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি আরো বলেন- খুনি জিয়ার স্ত্রী খালেদা জিয়া ও তার সন্তান তারেক জিয়া ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা করে বঙ্গবন্ধু কণ্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার অপচেষ্টা চালিয়েছিল। সেই খুনিচক্র আজ নিশ্চিহ্ন হওয়ার পথে। দেশের মানুষ এখন খুনি জিয়ার মরণোত্তর ফাঁসি চায়।

আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে. কর্ণেল(অব.) ফোরকান আহমদ। তিনি শোককে শক্তিতে রূপান্তর করে সকল নেতা-কর্মীকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহবান জানান।
১৯ আগস্ট (বৃহস্পতিবার) বিকালে ঈদগাঁও পাবলিক লাইব্রেরী ও শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত সভায় নেতৃবৃন্দ উপরোক্ত কথা বলেন।

কক্সবাজার সদর উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন পুতুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রাজিবুল হক চৌধুরী রিকোর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার জেলা যুবলীগের সভাপতি সোহেল আহমদ বাহাদুর, সাধারণ সম্পাদক শহীদুল হক সোহেল, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো.আবু তালেব, জেলা যুবলীগের সাবেক সাংস্কৃতিক সম্পাদক হুমায়ুন কবির চৌধুরী হিমু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক লুৎফর রহমান আজাদ, ঈদগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছৈয়দ আলম, কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জালালাবাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইমরুল হাসান রাশেদ, রামু উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নীতিশ বড়ুয়া, জেলা যুবলীগ নেতা ইসমাইল সাজ্জাদ, মীর্জা ওবাইদ রুমেল, নুরুল আলম, মো. সোহেল, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সভাপতি নুরুল হাকিম নকি, আ. লীগ নেতা নুরুল মোস্তফা, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ফরিদুল আলম, জুলকার নাঈম জিল্লু। সভায় বক্তব্য রাখেন ঈদগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তারেক আজিজ, সদর উপজেলা যুবলীগ নেতা মিজানুল হক, জামিল উদ্দিন শামস্, কামাল উদ্দিন, শহীদ মোস্তফা, মিজানুর রহমান, ঈদগাঁও ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি এনাম রনি, সাধারণ সম্পাদক রাশেদ উদ্দিন রাসেল, জালালাবাদ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি হাসান তারেক, সাধারণ সম্পাদক শাহেদ কামাল, ইসলামাবাদ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি নাছির উদ্দীন জয়, সাধারণ সম্পাদক দিদারুল ইসলাম দিদার মেম্বার, ইসলামপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ওসমান আলী মোরশেদ, সাধারণ সম্পাদক আবছার কামাল শাহীন, পোকখালী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আমজাদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক অহিদুর রহমান ইত্তেহাদ, চৌফলদন্ডী ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ইয়াছির আরাফাত, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল আমান, পিএমখালী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মো আরিফ, সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান লাভলু, ঝিলংজা ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক জুয়েল সিকদার, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ফিরোজ উদ্দিন খোকা, ছাত্রলীগ নেতা ইরফানুল করিম, আবু হেনা বিশাদ, বোরহান উদ্দিন, সোহেল মাহমুদ রোহান, মো. আব্দুল্লাহ, সৈয়দ আলম তামিম, আব্দুর রহমান প্রমুখ।

এর আগে নব গঠিত ঈদগাঁও উপজেলার ঈদগাঁও, জালালাবাদ, পোকখালী, ইসলামাবাদ, ইসলামপুর ইউনিয়ন যুবলীগের উদ্যোগে খতমে কুরআন ও দোয়া মাহফিল এবং আলোচনা সভা শেষে মেজবান অনুষ্ঠিত হয়।