মেসিকে আটকানোর ‘উপায় জানে’ ব্রাজিল

ক্রীড়া ডেস্কঃ
সময়ের সেরা তো বটেই, অনেকের মতে ফুটবল ইতিহাসেরই সেরা লিওনেল মেসি। তাকে আটকানো যেকোনো প্রতিপক্ষের জন্য সবচেয়ে কঠিন কাজ। একজনের পক্ষে তো নয়ই, আর্জেন্টাইন তারকাকে রুখতে লাগবে দলীয় প্রচেষ্টা, ভালোমতোই জানেন ও বোঝেন ব্রাজিলের ডিফেন্ডার মার্কিনিয়োস। তবে কোপা আমেরিকার শিরোপা লড়াইয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের মুখোমুখি হওয়ার আগে দারুণ আত্মবিশ্বাসী তিনি। দৃঢ়কণ্ঠে বললেন, মেসিকে আটকানোর উপায় তাদের জানা।

রিও দে জেনেইরোর মারাকানা স্টেডিয়ামে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে মুখোমুখি হবে দল দুটি। বাংলাদেশ সময় আগামী রোববার ভোর ছয়টায় শুরু হবে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর লড়াই।

আর্জেন্টিনার হয়ে একটি শিরোপা জেতার হাহাকার ক্যারিয়ার জুড়েই সঙ্গী মেসির। এখন পর্যন্ত তিনবার কোপা আমেরিকার ফাইনালে খেলেছেন মেসি। ২০০৭-এর ফাইনালে এই ব্রাজিলের বিপক্ষেই ৩-০ গোলে উড়ে গিয়েছিল আর্জেন্টিনা। আর ২০১৫ ও ২০১৬ আসরে চিলির বিপক্ষে টাইব্রেকারে জুটেছিল হারের তেতো স্বাদ। ২০১৪ বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেও জিততে পারেনি তারা।

বছরের পর বছর ধরে জাদুকরী ফুটবলে ব্রাজিলেও অনেক ভক্ত পেয়েছেন মেসি। দেশটির সাবেক-বর্তমান ফুটবলারদের অনেকেও চান, অন্তত একটি শিরোপা উঠুক তার হাতে। তবে সেটা অবশ্যই ব্রাজিলের বিপক্ষে নয়। মার্কিনিয়োসের কণ্ঠেও উচ্চারিত হলো তাই। সংবাদ সম্মেলনে বললেন, আর্জেন্টিনা অধিনায়ককে আরও একবার হতাশ করতে চান তারা।

“এটা স্বাভাবিক যে, মানুষ চায় মেসি শিরোপাটি জিতুক। তার ইতিহাস ও সে যা কিছু অর্জন করেছে এর পূর্ণতার জন্য। তবে আমরা তাকে তার লক্ষ্য অর্জনে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করব।”

আর্জেন্টিনাকে হারাতে হলে অবশ্যই প্রথমে মেসিকে আটকানোর পরিকল্পনা আঁটতে হবে। তবে কেবল তাকে আটকালেই হবে না। দলটির আক্রমণভাগে সের্হিও আগুয়েরো, লাউতারো মার্তিনেসের মতো পরীক্ষিতরা আছেন। তবে প্রতিপক্ষ যত শক্তিশালীই হোক না কেন, তাদের রুখে দিতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ ব্রাজিল, বললেন মার্কিনিয়োস।

“একজন খেলোয়াড়ের পক্ষে মেসিকে থামানো কঠিন। আমাদের পুরো রক্ষণভাগ প্রয়োজন এবং আমাদের কোচ জানে কীভাবে তা করতে হবে। আমরা কেবল মেসির দিকেই মনোযোগ দিতে পারি না, কারণ তখন বাকিরা ব্যবধান গড়ে দিতে পারে।”

ফুটবল ইতিহাসের পুরনো দ্বৈরথগুলোর একটি ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ম্যাচ। এখন পর্যন্ত সব প্রতিযোগিতা মিলে দুই দল মুখোমুখি হয়েছে ১১১ বার। যেখানে ৪৬ ম্যাচ জিতে এগিয়ে ব্রাজিল। আর্জেন্টিনার জয় ৪০টি, বাকি ২৫ ম্যাচ হয়েছে ড্র।

ফুটবল বিশ্বে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার দ্বৈরথ পরিচিত ‘সুপার ক্লাসিকো’ নামে। যে লড়াইয়ে অংশ নেওয়ার স্বপ্ন শৈশব থেকে দেখে আসছেন মার্কিনিয়োস। এবার তা সত্যি হতে চলেছে তার।

“এটা (ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা লড়াই) সাধারণ একটি ফুটবল ম্যাচের চেয়ে বেশি। এই ম্যাচ খেলার স্বপ্ন সবাই দেখে। কারণ এর ইতিহাস ও বিশ্বের সেরা ফুটবলার এই ম্যাচ খেলেছে-পেলে, জিকো, রোনালদো, রোনালদিনিয়ো, আরেক দলে মারাদোনা, মেসি ও দারুণ সব ফুটবলারদের জন্য। কেবল দক্ষিণ আমেরিকা নয়, তারা বিশ্ব ফুটবলের প্রতিনিধিত্ব করেন। আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল ম্যাচের সঙ্গে পৃথিবীও থমকে যায়।”

সূত্রঃ বিডিনিউজ