লামায় ৩ কোটি ৪ লক্ষ টাকা বরাদ্দে সড়কের কাজ শেষ না হতেই পানি জমে জন ভোগান্তি

মোঃ নাজমুল হুদা, লামাঃ
বান্দরবান জেলার উপজেলার ফাইতং ইউনিয়নে ৩ কোটি ৪ লক্ষ টাকা বরাদ্দে বাইন্যাছড়া-গজালিয়া,হাইস্কুল সড়কের নির্মাণ কাজ শেষ না হতেই পানি জমে জনভোগান্তি ও সড়কের কার্পেটিং ওঠে যাওয়ার সম্ভাবনা ! প্রায় ১২টি স্পটে স্থানে পানি জমে থাকার কারনে বর্ষার রাস্তা নষ্ট ও জনদূভোগ পোহাতে হচ্ছে। লামা ফাইতং ইউনিয়নের বাইন্যাছড়া-গজালিয়া,হাইস্কুল পর্যন্ত ২ কিলোমিটার ১২৫০ মিটার সড়ক নির্মাণে ২ কোটি ৪ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেয় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর। ইতিমধ্যেই সড়কের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। কিন্তু নির্মাণের ১মাসের মাথায় সড়কে পানি জমে থাকায় উঠে যাওয়ার সম্ভাবনা সড়কের কার্পেটিং! সড়ক দূর্ঘটনা হওয়ার অশংকা রয়েছে। এ কারণে সংস্কার করে সড়কটি ফের নির্মাণের দাবি তুলেছে এলাকাবাসী।

জানা যায়, সড়কের কার্পেটিং কাজে সীমাহীন অনিয়ম হলেও রহস্যজনক কারণে নিরব রয়েছে সড়কের কাজ তদারকীর দায়িত্বে থাকা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর, লামা প্রকৌশলীর কার্যালয়!

আজ সরেজমিন গিয়ে স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, লামা উপজেলার ফাইতং ইউনিয়নের বাইন্যাছড়া থেকে হাইস্কুল পর্যন্ত ২ কিলোমিটার বা ১২৫০ মিটার সড়কের মধ্যে ১২০ মিটার আরসিসি নির্মাণ কাজ হয়েছে। গত ৪/৫ মাস পূর্বে সড়কের কার্পেটিং ও অন্যান্য কাজ শুরু করে ঠিকাদার। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর থেকে সড়কের কাজটি বাস্তবায়নের জন্য কার্যাদেশ পান বান্দরবানের হাসান এন্ড জে.বি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান।

সড়কে নিম্নমানের বিটুমিন, পাথর ও বালু ব্যবহারের কারণে কার্পেটিং ব্যবহার করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয়রা। আরও টিকাদার প্রভাবশালী হওয়ায় অনিয়মের বিষয়ে কেউ প্রতিবাদ করলে হুমকি দেন বলেও জানান।

লামার ফাইতং ইউনিয়নের নয়াপাড়া (৬ নং ওয়ার্ড) গ্রামের বাসিন্দা নুরু উদ্দীন অভিযোগ করে বলেন, অত্যন্ত নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের কারণে এমনটি হয়েছে। সিডিউল অনুযায়ী সড়কের কাজ করেনি টিকাদারী প্রতিষ্ঠান। সামান্য বৃষ্টির পানিতে সড়কে সমস্যা হচ্ছে । তিনি সড়কের

কাজে অনিয়ম-দূর্নীতির সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য এলজিইডির উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নিকট জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

লামার ফাইতং ইউনিয়ন নয়া পাড়া গ্রামের সচেতন বাসিন্দা হাজী জাফর আলম অভিযোগ করে এ প্রতিবেদককে জানান, ফাইতং জনগুরুত্বপূর্ণ এ রাস্তাটি কাজে অনিয়ম, দূর্নীতি হওয়ার কারনে সামান্য বৃষ্টিতে আমাদের মসজিদের সামনে পানি জমে থাকে। সে কারণে মসজিদের মুসল্লীসহ জনসাধারনণ চলাফেরা করতে বিঘ্নিত হচ্ছে।

অভিযোগের ব্যাপারে জানতে লামা এলজিইডি প্রকৌশলী মোঃ মাহফুজুল হকের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি সড়কের কাজের অনিয়ম নিয়ে কোন ধরনের কথা বলতে রাজি হননি। আরও এ বিষয়ে আমরা আগামী শনিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখে ব্যবস্থা নিব বলেও জানান তিনি।