রামুতে স্থানীয় অর্থনীতির উন্নয়নে কাজ করছে হেলভেটাস

খালেদ শহীদ, রামুঃ
রামু উপজেলার চার ইউনিয়নের স্থানীয় অর্থনীতির উন্নয়নে কাজ করছে হেলভেটাস বাংলাদেশ। নির্বাচিত সুবিধাভোগীদের প্রশিক্ষণ ও ব্যবসায় সহায়তা দিয়ে উদ্যোক্তা উন্নয়ন সমর্থন এবং বাজার কার্যক্রমের মাধ্যমে প্রকৃত জীবিকার পরিস্থিতির উন্নতি ও পুনরুদ্ধারে কাজ শুরু করছে এ সংস্থাটি।

বৈদেশিক দাতা সংস্থা জিআইজেড এর অর্থায়নে হেলভেটাস ‍সুইস ইন্টারকোঅপারেশন কর্তৃক বাস্তবায়িত ‘কক্সবাজার- জিআইজেড জীবিকা নির্বাহ ২০২০-২০২৩ রামু” প্রকল্পের অবহিতকরণ সভায় এ তথ্য জানানো হয়। গত বুধবার (১৬ জুন) রামু উপজেলা অফিসার্স ক্লাবে অনুষ্ঠিত হয় ‘হেলভেটাস বাংলাদেশ’ এর এ প্রকল্প অবহিতকরণ সভা। রামু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সোহেল সরওয়ার কাজল ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন।

হেলভেটাস বাংলাদেশ এ প্রকল্পের আওতায় কাউয়ারকোপ, রাজারকুল, দক্ষিণ মিঠাইছড়ি এবং খুনিয়াপালং ইউনিয়নে ক্ষুদ্র এবং মাঝারি উদ্যোক্তা উন্নয়ন, শিক্ষানবিশি পদ্ধতিতে কারিগরি শিক্ষার মাধ্যমে যুব কর্মসংস্থান, কাজের বিনিময়ে ক্যাশ এবং উদ্যোক্তা উন্নয়নে কাজ করবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রণয় চাকমা, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ সরওয়ার উদ্দীন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো: সালাউদ্দিন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আফসানা জেসমিন পপি, রাজারকুল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মুফিজুর রহমান প্রমুখ।

প্রকল্প অবহিতকরণ সভায় স্বাগত বক্তৃতা করেন, হেলভেটাস বাংলাদেশের প্রকল্প ব্যবস্থাপক জাহাঙ্গীর কবীর। প্রকল্পের মুল বক্তব্য উপস্থাপন করেন, মো. সেলিম উদ্দিন।

অনুষ্ঠানে সরকারি বেসরকারি সাহায্য সংস্থার কর্মকর্তা, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও জাতীয় ও আঞ্চলিক পর্যায়ের সাংবাদিকরা উপস্থিত দিলেন।

প্রধান অতিথি সোহেল সরওয়ার কাজল হেলভেটাস বাংলাদেশের সকল কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জ্ঞাপনপূর্বক সংস্থার সকল কাজের প্রশংসা করেন এবং প্রকল্প বিষয়ক সকল ধরনের সাহায্য সহযোগীতা প্রদানের আশ্বাস প্রদান করেন।

প্রকল্প বিষয়ক সুনির্দিষ্ট মতামত ও দিকনির্দেশনা প্রদান করে বক্তৃতা করেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রণয় চাকমা। তিনি বলেন, রামু উপজেলার বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীসহ সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে প্রকল্পের সুবিধাভোগীর আওতায় আনতে হবে। বিশেষ করে বেকার যুব ও যুব মহিলাদের অন্তর্ভুক্ত করতে হবে এ প্রকল্প কার্যক্রমে। তিনি বলেন, এই ধরনের দক্ষতা উন্নয়নমূলক প্রকল্প তার এলাকার অর্থনৈতিক উন্নয়নের পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক অবক্ষয় যেমন, বাল্যবিবাহ, নারীনির্যাতন, মাদকসেবন ইত্যাদি হ্রাস করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। এলাকায় বিভিন্ন ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প কারখানা গড়ে তোলতে সহায়তা করবে। পাশাপাশি নারীদের আত্ম-কর্মসংস্থানের ক্ষেত্র বৃদ্ধি যেমন নকশি কাঁথা সেলাই, স্থানীয় হস্তশিল্পে নারীর প্রতিনিধিত্বমূলক অংশগ্রহন, স্থানীয় আচার ও শুটকি প্রসেসিংসহ ইত্যাদি আয়বর্ধনমূলক কাজের প্রতি দৃষ্টি আরোপ করেন।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ সরওয়ার উদ্দীন বলেন, নামে বেনামে রোহিঙ্গারা আছে রামুতে। আর্ত-সামাজিক দিক দিয়ে কক্সবাজার সবচেয়ে পিছিয়ে পড়া অঞ্চল। বাংলাদেশে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর প্রবেশের ফলে রামু উপজেলায় বিভিন্ন অর্থনৈতিক উন্নয়নে প্রতিব্ধকতা সৃষ্টি হচ্ছে। তিনি বলেন, জীবনমুখী দক্ষতা উন্নয়নমূলক প্রকল্প বাস্তবায়ন করে নারী শিক্ষার প্রসার ঘটাতে হবে। শিশুশ্রম, বাল্য বিবাহ রোধ করতে হবে। এ বিষয়ে আমাদের প্রত্যককে সচেতন হতে হবে।

জিআইজেড লাইভলিহুড প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক জনাব মোঃ সেলিম উদ্দিন পৃথিবীব্যপী হেলভেটাসের কার্যক্রম ও জিআইজেড লাইভলিহুড প্রকল্পের কার্যক্রম সম্পর্কে উপস্থিত অতিথিদের অবহিত করেন।

সভায় বিষয়টি উপস্থিত অতিথিদের অবহিত করা হয়। অবহিতকরণ সভায় সমাপনী বক্তব্য রাখেন,রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রণয় চাকমা এবং অনুষ্ঠান শেষে উপস্থিত অতিথিদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন, জিআইজেড লাইভলিহুড প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক।