লামায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

মোঃ নাজমুল হুদা, লামা:
বান্দরবানের লামা উপজেলায় নিজ ঘরে ফাঁসিতে ঝুলে মো. শফিক মিয়া (৩৪) নামে এক যুবক আত্মহত্যা করেছে। সাংসারিক অশান্তি ও কলহ বিবাদের জের ধরে এই যুবক আত্মহত্যা করেছে বলে জানা গেছে। সে সদর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের হাসপাতাল গ্রামের ৯১ সিঁড়ি পাড়ার নুরুল আলমের ছেলে। বৃহস্পতিবার (১১ মার্চ২১ইং) রাতের কোন এক সময় শফিক নিজ ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

খবর পেয়ে রাত ১টায় লামা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করে। সকালে নিহতের লাশ ময়নাতদস্তের জন্য বান্দরবান জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক আনোয়ার হোসেন বলেন, আমরা যাওয়ার আগে স্বজন ও স্থানীয়রা শফিকের ফাঁসিতে ঝুলন্ত লাশ নামায়। আমরা লাশের প্রাথমিক সুরতহাল শেষে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য বান্দরবান প্রেরণ করি।

স্বজন ও পার্শ্ববর্তীরা জানান, মো.শফিক মিয়া সবসময় মদ পান ও উচ্ছৃঙ্খল জীবন যাপন করত। প্রায়সময় ঝগড়া করে বউ ফেলে অন্যত্র চলে যেত। তাদের সংসারে অশান্তি ও কলহ বিবাদ লেগেই থাকতো। ঘটনার দিন রাতেও স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া বিবাদ হয়। তার শশুড় বাড়ি নিকটে। ঝগড়ার এক পর্যায়ে তার স্ত্রী বাপের বাড়িতে চলে যায়। ফাঁকা ঘরে শফিক গলায় কাপড় পেঁচিয়ে ফাঁস লাগিয়ে রাতের ১১টা হতে সাড়ে ১২টার মধ্যে কোন এক সময় আত্মহত্যা করে। তার ৪টিশিশু সন্তান রয়েছে। তবে তার মৃত্যুটি পরিকল্পিত হত্যা? না কি আত্মহত্যা সচেতন মানুষের নানা মন্তব্য রয়েছে।

গলায় ফাঁস লাগিয়ে মৃত্যুর বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে লামা থানা ইনচার্জ মিজানুর রহমান মিজান বলেন, এই বিষয়ে লামা থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন আসলে বিস্তারিত বলা যাবে।