শীতে ত্বকের রক্ষা কবজ সুরক্ষিত রাখার উপায়

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ
সাধারণ কয়েকটি পন্থায় শীতকালে ত্বকের কোমল মসৃণভাব বজায় রাখায় যায়। ঠাণ্ডার কারণে ত্বকে নানান ধরনের সমস্যা যেমন- মলিনতা, ফাটা ইত্যাদি দেখা দেয়। এই সময়ে ত্বকের সুরক্ষার স্তর ঠিক রাখতে সঠিক যত্নের প্রয়োজন।

রূপচর্চা-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অবলম্বনে শীতে ত্বকের সুরক্ষার স্তর রক্ষা করার উপায় সম্পর্কে জানান হল।

হালকা প্রসাধনী:
ত্বকের পিএইচ’য়ের ভারসাম্য বজায় রাখার সবচেয়ে সহজ উপায় হল কোনো রকমের রাসায়নিক উপাদান বা ‘ট্রিটমেন্ট’ অতিরিক্ত ব্যবহার না করা। শীতকালেও ত্বকের নিয়মিত পরিচর্যা চালিয়ে যাওয়া প্রয়োজন।

ত্বক এক্সফলিয়েট করতে মৃদু উপাদান ব্যবহার করা এবং তা অবশ্যই সপ্তাহে দুদিনের বেশি নয়। ত্বক বার বার পরিষ্কার করা হলে তা ত্বকের সুরক্ষার স্তরকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। ত্বক পরিষ্কার করতে মৃদু পরিষ্কারক ও অ্যালকোহলবিহীন ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা উচিত। মুখের ত্বকে কখনই গরম পানি ব্যবহার করা যাবে না।

ত্বক পরিচর্যার তেল ব্যবহার:
ত্বক ভালো রাখতে যে উপাদানই ব্যবহারই করা হোক না কেনো তা সুরক্ষিত রাখতে তেল ব্যবহার করা উচিত। ‘ফেইস অয়েল’ ত্বকে ব্যবহৃত সকল উপাদান সুরক্ষিত রাখে যেমন- মিস্ট, সিরাম ও ময়েশ্চারাইজার ব্যবহারের পরে তেল ব্যবহার তা ত্বকে আবদ্ধ করতে সহায়তা করে। তেল ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখতে প্রহরীর মতো কাজ করে।

সুরক্ষা স্তর সৃষ্টিকারি উপাদান:
সিরামাইডস, স্কুয়ালেন, হুম্যাকট্যান্টস ও পেপটাইডস সমৃদ্ধ ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা উচিত। ত্বক আর্দ্র রাখতে সব বাদ দিয়ে কেবল পেট্রোলিয়াম জেলিও ব্যবহার করা ভালো। কোলাজেন ও ইলাস্টিন ত্বক কোমল এবং তরুণ রাখতে সাহায্য করে। পেপটাইডস এগুলো গঠনে সহায়তা করে।

সূর্যরশ্মি থেকে রক্ষা:
সূর্যরশ্মি ত্বককে সরাসরিভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করে। এর ফলে কালো দাগ, বিবর্ণতা ও ত্বকে ছোপছোপ দাগ ও বলিরেখা দেখা দেয়। তাই, বাইরে যাওয়ার আগে সানস্ক্রিন ব্যবহার করা ও দুতিন ঘণ্টা পরপর পুনরায় তা ব্যবহার করা প্রয়োজন। সূর্যরশ্মি ত্বকের প্রোটিনের স্তর ভেঙে দুর্বল করে ফেলে এবং সুরক্ষার কার্যকারিতাও কমায়। ত্বককে সূর্যের ক্ষতিকারক রশ্মি থেকে রক্ষা করতে সান স্ক্রিন ব্যবহারের বিকল্প নেই।

সূত্রঃ বিডিনিউজ