নিজের সঠিক ওজন বোঝার উপায়

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ
শরীর ও মন ভালো রাখতে নিজের ওজন ঠিক আছে কিনা সেদিকে নজর দেওয়া প্রয়োজন। অনেকেই নিজের ওজন সম্পর্কে সচেতন না এবং না বুঝেই ওজন বাড়ানো-কমানোর জন্য ব্যাতিব্যাস্ত হয়ে যান।

স্বাস্থ্য-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে সঠিক ওজন সম্পর্কে জানা ও তা বজায় রাখার উপায় সম্পর্কে জানানো হল।

ইতিমধ্যে স্বাস্থকর জীবনযাত্রা মেনে চলছেন

সঠিক ওজন বজায় রাখার মূল চাবিকাঠি স্বাস্থ্যকর জীবনধারা অনুসরণ করে চলা এবং সঠিক খাবার গ্রহণ করা প্রয়োজন। যদি ইতোমধ্যে এই জীবনধারা মেনে চলতে থাকেন তাহলে প্রাকৃতিকভাবেই ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকবে। সুস্থ থাকা মানে কেবল ওজন কমানো নয়, অনেকসময় পেশির কারণেও ওজন বৃদ্ধি পেতে পারে। তারমানে এই নয় যে, আপনি স্থূলকায় বা অযোগ্য।

ইতোমধ্যে স্থিতিশীল ওজন অর্জন করেছেন

আপনার ওজন যদি স্থিতিশীল থাকে এবং আগের চেয়ে ভালো অনুভব করেন তাহলে বুঝতে হবে এর চেয়ে ওজন বাড়ানোর আর প্রয়োজন নেই। আদর্শ ওজন এমন একটা সংখ্যা যা আপনি কোনো রকম বিধিনিষেধ ছাড়াই ঠিক রাখতে পারেন এবং এই ওজন দীর্ঘদিন ধরে স্থির ও আপনি বেশ সুস্থবোধও করেন। তাহলে বুঝে নেবেন আপনার আদর্শ ওজন আপনি অর্জন করেছেন। ওজন স্থির হওয়ার পরে তা আর কমানো বা বাড়ানোর জন্য চেষ্টা প্রচেষ্টা চালানোর দরকার নেই।

কোমড়ের সঠিক মাপ

পেটের মেদ ও কোমড়ের মাপ আপনার শারীরিক সুস্থতার অনেকটাই নির্দেশ করে। এর মধ্যদিয়ে স্থূলতা, হৃদরোগ ও দীর্ঘমেয়াদি রোগ যেমন: টাইপ-২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকি সম্পর্কে জানা যায়। কোমড়ের মাপ পুরুষের জন্য ৪০ ইঞ্চির কম ও নারীদের জন্য ৩৫ ইঞ্চির কম আদর্শ।

হৃদযন্ত্রকে বিশ্রাম দিন

হৃদগতি ওজন সম্পর্কে জানান দেয়। হৃদগতি ধীর হওয়ার অর্থ হল তা ঠিক মতো কাজ করছে। দ্রুত গতির হৃদক্রিয়া স্বাস্থ্যগত সমস্যার কারণ হতে পারে। হৃদক্রিয়ায় সঠিক গতি হল প্রতি মিনিটে ৬০ থেকে ১০০। এর কম বা বেশি স্বাস্থ্য ঝুঁকির কারণ হতে পারে।

মন ভালো থাকা

গবেষকদের মতে, সঠিক ওজন মানুষের শরীর ও মন ভালো রাখে। তাই বিএমআই অনুযায়ী নিজের সঠিক ওজন সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া ও তা বজায় রাখা প্রয়োজন। এছাড়াও, ওজন ঠিক আছে কিনা তা নিশ্চিত করতে নিজের মন মেজাজের ওপরও ভরসা রাখা প্রয়োজন।

সূত্রঃ বিডিনিউজ