এপ্রিলেই শ্রীলঙ্কা যাচ্ছে টাইগাররা!

ক্রীড়া ডেস্কঃ
করোনার ভেতরে দেশে ও বাইরে পাঁচ পাঁচটি সিরিজ স্থগিত হয়েছে বাংলাদেশের। এর মধ্যে শ্রীলঙ্কা সফর বাতিলই ছিল সবচেয়ে আলোচিত। ওই সফর নিয়ে কত নাটকই না হয়েছে!

এ বছর জুলাইতে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে শ্রীলঙ্কা যাওয়ার কথা ছিল টাইগারদের। তারপর অক্টোবরে সূচি করার কথাবার্তাও হয়েছে। আনুষ্ঠানিক না হলেও সে সফরের অনানুষ্ঠানিক প্রস্ততি ঠিকই শুরু হয়ে গিয়েছিল। হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো আর পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসন, ফিল্ডিং কোচের রায়ান কুকসহ বিদেশি কোচিং স্টাফদের প্রায় সবাই করোনার ঝুঁকি উপক্ষো করে ছুটে এসেছিলেন ঢাকায়। কিন্তু লঙ্কানদের কঠোরতার কারণে বিসিবি শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে।

বলার অপেক্ষা রাখে না, লঙ্কান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সফরকারিদের ওপর ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকার বাধ্যবোধকতা চাপিয়েই রেখেছিল। বিসিবি সেটাকে কমিয়ে ৭ দিন করার প্রস্তাব দিলেও তারা নিজ অবস্থান থেকে একচুলও সরেনি। আর তাই শেষ পর্যন্ত সফর বাতিল হয়ে যায়। বিসিবি ও লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডের ভেতরে রফা হয়, পরে সুবিধাজনক সময়ে ওই সিরিজে আয়োজনের।

আশার খবর, সেই স্থগিত সিরিজ আবার আয়োজনের সম্ভাবনা আছে। সব কিছু ঠিক থাকলে ২০২১ সালের এপ্রিলে শ্রীলঙ্কার মাটিতে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে যেতে পারে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। হাওয়া থেকে পাওয়া খবর নয়। খোদ বিসিবি প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন জানিয়েছেন এ তথ্য।

আজ (সোমবার) বিকেলে বিসিবিতে উপস্থিত সাংবাদিকদের সাথে আলাপে বিসিবি সিইও শ্রীলঙ্কা সফর নিয়ে বলেন, ‘সিরিজের ব্যাপারে শ্রীলঙ্কা বোর্ডের সঙ্গে কথা হচ্ছে আমাদের। লঙ্কান বোর্ড থেকেই এ প্রস্তাব এসেছে।’

নিজামউদ্দিন চৌধুরী যোগ করেন, ‘আমাদের মধ্যে আলোচনা চলছিল, কিন্তু সিরিজটি হয়নি। অবশেষে আমরা ঐক্যমতে পৌছেঁছি যে, আমাদের যে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের কমিটমেন্ট রয়েছে, সেই অনুযায়ী আমরা শ্রীলঙ্কার সঙ্গে টেস্ট ম্যাচ খেলব। তার সঙ্গে যদি অন্য কিছু যুক্ত হয় আমাদের এফটিপিতে, ওই জায়গাটা পাওয়া যায়, আমরা সেভাবেই কাজ করে নিব।’

বিসিবি সিইও আরও বলেন, ‘এটা এই মুহূর্তে এপ্রিলকে টার্গেট করে করা হচ্ছে। এই সময় একটা ফাঁকা জায়গা আছে আমাদের এবং শ্রীলঙ্কার জন্য। সেভাবেই আমরা কাজ করছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘অন্তত দুটি হবে। এর সাথে আর ওয়ানডে বা টি-টোয়েন্টি যোগ হবে কি না, তা নির্ভর করবে সময়ের ওপর। দুই দলের পরবর্তীতে কোন সফর বা সিরিজ না থাকলে হবে, না হয় হবে না।’

সূত্রঃ জাগোনিউজ