শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিয়ে সিদ্ধান্ত ‘দুয়েক দিনের মধ্যে’

অনলাইন ডেস্কঃ
করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে আগামী ১৪ নভেম্বরের পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সীমিত পরিসরে খোলা হবে, নাকি ছুটি আরও বাড়বে- সেই সিদ্ধান্ত আগামী ‘দুয়েক দিনের মধ্যে’ জানা যাবে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার সিদ্ধান্ত জানানোর সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নে এ কথা বলেন।

১৪ নভেম্বরের পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলবে কি না, সেই প্রশ্নে তিনি বলেন, “এটা শিক্ষা মন্ত্রণালয় জানাবে আপনাদেরকে।”

বাংলাদেশে করোনাভাইসের প্রকোপ বাড়তে শুরু করলে গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়। কওমি মাদ্রাসা বাদে অন্যসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আগামী ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা আছে।

মহামারীর মধ্যে এবার পঞ্চম ও অষ্টমের সমাপনী পরীক্ষা এবং মাধ্যমিক স্তরের বার্ষিক পরীক্ষা নেবে না সরকার। আর অষ্টমের সমাপনী এবং এসএসসি ও সমমানের ফলফলের ভিত্তিতে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল ঘোষণা করা হবে।

আগামী বছর যারা এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষায় বসবে, তাদের কথা মাথায় রেখে ১৪ নভেম্বরের পর সীমিত পরিসরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হতে পারে বলে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি আগেই আভাস দিয়েছেন। তবে তার আগে কোভিড-১৯ পরিস্থিতিকে বিবেচনায় নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার মত পরিবেশে সৃষ্টি হয়েছে কি না, এমন প্রশ্নে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, “দেখেন, উনারা (শিক্ষা মন্ত্রণালয়) কাল-পরশুই জানাবেন।”

এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী কোনো নির্দেশনা দিয়েছেন কি না, সেই প্রশ্নে আনোয়ারুল বলেন, “খুলনা ডিভিশন থেকে একটা স্ট্রং অ্যাকশন (ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা) নেওয়া হচ্ছে, আমরাও চারদিকে সবাইকে বলেছি। প্রধানমন্ত্রীও অ্যাপ্রিশিয়েট করেছেন। কিছু স্ট্রিক্ট ভিউতে যেতে হবে। এখন পর্যন্ত আমরা কম্ফোর্টেবল জোনের মধ্যে আছি।”

সাংবাদিকদের উদ্দেশে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, “আপনারা একটু বেশি করে প্রচার করবেন, যাতে সবাই গুরুত্ব দেয়।”

সূত্রঃ বিডিনিউজ