অবশেষে কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি গঠন

অনলাইন ডেস্কঃ
অবশেষে কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। সোমবার (০২ নভেম্বর) কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় এবং সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য ১৪ জনের নতুন এ কমিটির অনুমোদন দেন।

নতুন কমিটিতে সভাপতি করা হয়েছে সদ্যবিলুপ্ত কক্সবাজার জেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন এবং সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে উপ-শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক মারুফ আদনানকে। তাদের সঙ্গে আরও ১২ জনকে সহ-সভাপতি, যুগ্ম-সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক করে এক বছরের জন্য কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য কমিটি গঠনের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। একই সঙ্গে নিজের ফেসবুক পেজে কমিটি অনুমোদনের প্যাড আপলোড করেন।

সেখানে উল্লেখ করা হয়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের এক জরুরি সিদ্ধান্ত মোতাবেক জানানো যাচ্ছে যে, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কক্সবাজার জেলা শাখার মেয়াদ উত্তীর্ণ কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হলো। সেই সঙ্গে সাংগঠনিক কার্যক্রম গতিশীল করার লক্ষ্যে আগামী এক বছরের জন্য নতুন এই কমিটির অনুমোদন দেয়া হলো-

নতুন কমিটিতে সহ-সভাপতি করা হয়েছে মো. মাইন উদ্দিন, কাইসার উল আলম মুন্না চৌধুরী, বোরহান উদ্দিন খোকন, নারিমা জাহানকে।

যুগ্ম-সম্পাদকের পদ পেয়েছেন আনোয়ার হোসেন, শাখাওয়াত হোসেন, সাজ্জাদুল হক, মো. শওকত হোসেন। সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পেয়েছেন ওয়াসিফ কবির, কামরুজ্জামান হিরু, এহসানুল হক মিলন ও গাজী নাজমুল হক।

এদিকে, নতুন কমিটি পেয়ে কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগকে গতিশীল ও সুসংগঠিত করতে সবার সহযোগিতা কামনা করেছেন নব গঠিত কমিটির সভাপতি সাদ্দাম হোসেন এবং সাধারণ সম্পাদক মারুফ আদনান।

অপরদিকে, নতুন কমিটি ঘোষণা আসার পর কমিটিকে অবৈধ কমিটি অবহিত করে বয়কটের ঘোষণা দিয়েছেন সদ্যবিলুপ্ত কমিটির সভাপতি ইশতিয়াক আহমেদ জয় ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মোরশেদ হোসাইন তানিম।

নতুন কমিটির বিরুদ্ধে নানা স্লোগান দিয়ে শহরের প্রধান সড়কের ফজল মার্কেট ও হাজেরা শপিং কমপ্লেক্স এলাকায় টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেন সাবেক সভাপতি-সম্পাদকের অনুসারীরা। এ সময় তাদের একদলকে সশস্ত্র অবস্থায় মহড়া দিতে দেখা যায়।

কক্সবাজার সদর থানার ওসি মুনীর উল গিয়াস বলেন, জেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি হওয়ায় পদবঞ্চিতরা হয়তো বিক্ষুব্ধ হয়ে টায়ার জ্বালিয়েছেন। খবর পেয়েই পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বিক্ষোভকারীদের ধাওয়া দেয়। অস্ত্র নিয়ে মহড়ার বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

২০১৪ সালের ১৩ ডিসেম্বর কক্সবাজার সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে জেলা ছাত্রলীগের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনের এক মাস পর ২০১৫ সালের ১০ জানুয়ারি ইশতিয়াক আহমেদ জয়কে সভাপতি ও ইমরুল হাসান রাশেদকে সাধারণ সম্পাদক করে ঘোষিত হয় কমিটি।

সূত্রঃ জাগোনিউজ