শ্রীলঙ্কা দেরি করলে ‘নতুন চিন্তা’ করবে বিসিবি

ক্রীড়া ডেস্কঃ
শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়া নিয়ে দেশটির ক্রিকেট বোর্ডের (এসএলসি) ইতিবাচক সাড়ার অপেক্ষায় আছে বিসিবি। নিজেদের প্রস্তুতি আগের পরিকল্পনা মতোই চালিয়ে যাচ্ছে তারা। তবে শ্রীলঙ্কার বোর্ড জবাব দিতে বেশি দেরি করলে নতুন চিন্তা করবে বিসিবি।

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান গত সোমবার জানান, শ্রীলঙ্কার শর্তাবলী মেনে নিজেদের প্রস্তুতির সঙ্গে আপোস করে সফরে যাবে না বাংলাদেশ। এরপর থেকেই এসএলসির বেশ তৎপরতার খবর এসেছে লঙ্কান সংবাদমাধ্যমে। দুই দেশের বোর্ড কর্তাদের কথাও চলছে। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের কাছ থেকে এখনও কিছু জানতে পারেনি বিসিবি।

সবকিছু লঙ্কান বোর্ডের হাতে নেই, এই বাস্তবতাও অনুধাবন করছে বিসিবি। আপাতত তাই চলছে অপেক্ষা, বৃহস্পতিবার সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে তেমনটাই জানালেন বিসিবি পরিচালক ও বোর্ডের মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস।

“আমরা ওদের ই-মেইলের অপেক্ষায় আছি। এখনও পাইনি, আশা করি কয়েকদিনের মধ্যে জানতে পারব। নির্দিষ্ট করে আমরা এখনও কিছু বলিনি। আমরা বলেছি, কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ কমাতে হবে ও আমাদের অনুশীলনের সুযোগ থাকতে হবে। এখন তাদের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি।”

“সিদ্ধান্তটা এখন শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটেরও না, আপনারা জানেন যে তাদের একটা টাস্ক ফোর্স আছে, যারা কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণ করছে। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট তাদের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছে, তারা জানলে পরে আমরা জানতে পারব। এখান থেকে চাপ দিলেও কাজ হবে না। তারা নিজেরাই জানাবে আমাদের। সেই অপেক্ষায় আছি। পরবর্তী দুই-তিন দিনের মধ্যে আসতে পারে।”

তবে সেই অপেক্ষা যে খুব বেশি সময় ধরে চলবে না, তা জানিয়ে দিলেন বিসিবি পরিচালক ও বোর্ডের মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস।

“আমরা প্রস্তুত। আগে যেরকম প্রস্তুতি নেওয়ার কথা ছিল সেরকম প্রস্তুতিই নিয়ে রেখেছি। ইতিবাচক কোনো উত্তর এলে আমরা এক সপ্তাহের মধ্যে প্রস্তুতি নিতে পারব। সেদিক দিয়ে আমাদের কোনো অসুবিধা হবে না। দুই-একদিন হয়তো এদিক সেদিক হতে পারে। বেশি দেরি করলে আবার আমাদের হয়তো নতুন করে চিন্তা ভাবনা করতে হবে।”

বিসিবি সভাপতিও সোমবার বলেছিলেন, সফর নিয়ে বিসিবি একবার কোনো সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেললে আর পিছু ফিরে তাকাবে না।

আপাতত আগের পরিকল্পনা অনুযায়ীই শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য বাংলাদেশের সম্ভাব্য স্কোয়াডের ক্রিকেটার ও সাপোর্ট স্টাফদের করোনাভাইরাস পরীক্ষা করানো হবে শুক্র ও শনিবার। রোববার থেকেই টিম হোটেলে উঠে ‘জৈব-সুরক্ষা’ বলয়ে চলে আসার কথা ক্রিকেটারদের। আগের পরিকল্পনা অনুযায়ী, হোটেলে ওঠার পর আরও দুই দফা করোনাভাইরাস পরীক্ষা করিয়ে মাসের শেষ দিকে শ্রীলঙ্কায় যাওয়ার কথা বাংলাদেশের।

সূত্রঃ বিডিনিউজ