পরীক্ষার বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি: সচিব

অনলাইন ডেস্কঃ
করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে চলতি বছরের উচ্চ মাধ্যমিক (এইচএসসি) এবং জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন।

সোমবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেছেন, কোনো সিদ্ধান্ত হলে সবাইকে তা আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়ে দেওয়া হবে। আর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলছে কি না, তা জানানো হবে ২৫ অগাস্টের পর।

দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বাড়তে থাকায় গত ১৭ মার্চ সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। ২৬ মার্চ থেকে সারা দেশে সব অফিস-আদালত আর যানবাহন চলাচল বন্ধ রেখে শুরু হয় ‘লকডাউন’।

টানা ৬৬ দিন সাধারণ ছুটির পর ৩১ মে থেকে সীমিত পরিসরে অফিস খুলে যানবাহন চলাচল শুরু হলেও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর ছুটি ৩১ অগাস্ট পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

প্রশাসনিক কর্মকাণ্ডের জন্য জুনের শুরুতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর অফিস খোলার অনুমতি দেওয়া হলেও শ্রেণিকক্ষের শিক্ষা কার্যক্রম শুরুর অনুমতি কোনো প্রতিষ্ঠানকেই দেওয়া হয়নি।

ভাইরাসের প্রকোপ শুরুর আগে এবারের এসএসসি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হলেও ১ এপ্রিল থেকে নির্ধারিত এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা আটকে গেছে মহামারীর কারণে।

বছর শেষে পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক সমাপনী এবং অষ্টমের জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা কবে, কীভাবে হবে, সে অনিশ্চয়তাও কাটেনি।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব বলেন, “আমরা যখনই পরীক্ষা নেব, এটা গোপন কোনো সিদ্ধান্ত নয়। আমরা প্রকাশ্যে একটি ঘোষণা দেব। অ্যাপ্রোপ্রিয়েট অথরিটির অ্যাপ্রুভাল এবং অ্যাপ্রোপ্রিয়েট অথরিটির মাধ্যমেই সেই ঘোষণা দেওয়া হবে। এ নিয়ে গুজব ছড়ানোর কোন যৌক্তিকতা নেই।”

তিনি বলেন, “এইচএসসি একটি পাবলিক পরীক্ষা, এর সঙ্গে আমাদের বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থীর জীবন জড়িত। এটা নিয়ে যদি আমরা গুজব ছড়িয়ে বিভ্রান্তি তৈরি করি, আমি বলব যে সমাজের প্রতি, শিক্ষার্থীদের প্রতি যে দায়বদ্ধতা আছে, সেটির বড় ধরনের ব্যত্যয় ঘটবে।”

সরকারের তরফ থেকে কোনো ঘোষণা না পাওয়া পর্যন্ত এ বিষয়ে ‘কোনো মন্তব্য করা থেকে’ বিরত থাকতে সবাইকে অনুরোধ জানান সচিব।

তিনি বলেন, “শিক্ষামন্ত্রী সুস্পষ্টভাবে বলেছেন, আমরা যখনই পরীক্ষা নেব, দুই সপ্তহের নোটিস দিয়ে সবাইকে জানাব। পরীক্ষার তারিখ ঠিক করে আমরা প্রকাশ্যে জানাব।”

আটকে থাকা এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়ার জন্য মন্ত্রণালয় প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে জানিয়ে সচিব বলেন, “এখন কোভিড-১৯ সিচুয়েশেনের কারণে বিশেষ প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি, স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করার জন্য যাতে প্রয়োজনে সেন্টার বৃদ্ধি করা যায়। যখনই আমরা তারিখ ঠিক করব, স্বাস্থ্যবিধি যেন যথাযথভাবে অনুসরণ করতে পারি, সেটি আমরা নিশ্চিত করব।”

অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার বিষয়ে এক প্রশ্নে মাহবুব হোসেন বলেন, “আমরা যখনই পরিপূর্ণভাবে সিদ্ধান্ত নেব, তখনই আপনাদেরকে জানাব। শুধু জেএসসি না, অন্যান্য পরীক্ষার ব্যাপারে আমাদের বিশেষজ্ঞরা যে পরামর্শ দিয়েছেন সেগুলো পর্যালোচনা করে আমরা উপযুক্ত সময়ে ঘোষণা করব আমরা কী করতে যাচ্ছি।”

সূত্রঃ বিডিনিউজ