চিকিৎসার জন্য লন্ডন গেলেন তামিম

ক্রীড়া ডেস্কঃ
দেশের নামি ও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বলছেন, তামিম ইকবালের শরীরে কোনো সমস্যা নেই অথবা থাকলেও সেটি নির্ণয় করা সম্ভব হচ্ছে না। কিন্তু হুট করেই প্রচণ্ড পেটের ব্যথায় ভোগেন জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম। যা একপ্রকার শয্যাশায়ী করে ফেলে তাকে।

যার ফলে বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার যখন ব্যক্তিগত উদ্যোগে একক অনুশীলনে মাঠে ফিরেছেন, তখন পেটের পীড়ার চিকিৎসার কথাই ভাবতে হচ্ছে তামিমকে। আর এক্ষেত্রে দেশে উপায়ন্ত করতে না পেরে বাধ্য হয়েই লন্ডনের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের শরণাপন্ন হচ্ছেন তামিম।

আজ (শনিবার) বাংলাদেশ সময় বেলা ১১টা ১০ মিনিটে এমিরেটসের ফ্লাইটে লন্ডনের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন তামিম। দুবাইয়ে যাত্রাবিরতি দিয়ে পরে লন্ডন পৌঁছাবেন তিনি। জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের বিমানবন্দরে অভ্যর্থনার দায়িত্বে থাকা ক্রিকেট অন্তঃপ্রাণ সংগঠক ওয়াসিম খান। তিনি আজও তামিমকে বিদায় জানাতে বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে যুক্তরাজ্য সরকারের নিয়মানুযায়ী লন্ডন পৌঁছেই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পারবেন না তামিম। তাকে আগে নিজ খরচে থাকতে হবে দুই সপ্তাহের সেলফ কোয়ারেন্টাইনে। এ সময়ের মধ্যে তার মধ্যে করোনাভাইরাসের কোনো উপসর্গ দেখা না দিলেই বাইরে বের হওয়ার অনুমতি পাবেন।

প্রসঙ্গতঃ মাসখানেক যাবত পেটের পীড়া ভোগাচ্ছে তামিম ইকবালকে। প্রায়ই পেটে অসহনীয় ব্যথা অনুভব করছেন। করোনার ভেতর দেশের বাইরে গিয়ে চিকিৎসা করানোয় আছে ঝক্কি। তাই প্রথমে দেশেই বিশেষজ্ঞদের শরণাপন্ন হওয়ার চেষ্টায় ছিলেন দেশের অন্যতম শীর্ষ ক্রিকেট তারকা। কিন্তু দেশে পরীক্ষানিরীক্ষার পর স্থানীয় চিকিৎসকরা সেভাবে রোগ ধরতে পারেননি।

তাই বিদেশে চিকিৎসা করানোর সিদ্ধান্ত তামিম ইকবালের। পেটের ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে চিকিৎসার জন্য দেশসেরা ওপেনারের প্রথম পছন্দই ছিল লন্ডন এবং লন্ডন যাওয়ার ও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের অ্যাপয়েন্টমেন্ট পাওয়ার চেষ্টাও চলছিল কদিন ধরেই। তা চূড়ান্ত হতেই লন্ডনের উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে গেলেন তামিম।

সূত্রঃ জাগোনিউজ