যুক্তরাষ্ট্রে ১ লাখ ৪৫ হাজারের বেশি প্রাণহানি

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
গত ৩১ ডিসেম্বর চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়ে। এরপর থেকে এখন পর্যন্ত বিশ্বের দুই শতাধিক দেশে প্রাণঘাতী এই ভাইরাস তাণ্ডব চালাচ্ছে।

এদিকে, করোনার হানায় পুরোপুরি বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির ৫০টি অঙ্গরাজ্যেই এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। আক্রান্ত ও মৃত্যুতে এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের ধারে-কাছে নেই কোনো দেশ।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের পরিসংখ্যান বলছে, যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত ১ লাখ ৪৫ হাজার ৪১৪ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে এই ভাইরাস। অপরদিকে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪০ লাখ ৬২ হাজার ৮৫৯।

দেশটিতে প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। তবে করোনা থেকে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছে ১৮ লাখ ৯৮ হাজার ১৮০ জন।

দেশটিতে বর্তমানে করোনার অ্যাক্টিভ কেস ২০ লাখ ১৯ হাজার ২৬৫টি। অপরদিকে, করোনায় আক্রান্ত হয়ে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছে ১৬ হাজার ৭৩৫ জন।

এদিকে, জন্স হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বলছে, যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩৯ লাখ ১৯ হাজার ৫৫০। এর মধ্যে মারা গেছে কমপক্ষে ১ লাখ ৪২ হাজার ৩৫০ জন।

করোনাভাইরাসের কারণে যে মহামারি পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তা নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন। সরকারের কঠোর পদক্ষেপের অভাবে দেশটিতে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে।

এদিকে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং দেশটির হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির মধ্যে দ্বন্দ্ব যেন থামছেই না। সম্প্রতি করোনাকে ‘ট্রাম্প ভাইরাস’ বলে উল্লেখ করেছেন এই স্পিকার।

করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় চরম ব্যর্থতায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কড়া সমালোচনা করে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তিনি এমন মন্তব্য করেন।

গণমাধ্যমে বক্তব্য রাখতে গিয়ে স্পিকার পেলোসি বলেন, করোনা মহামারি পরিস্থিতি ভালো হওয়ার থেকে বরং আরও খারাপ হয়েছে ট্রাম্পের ব্যর্থতায়। এটি এখন স্পষ্টতই ‘ট্রাম্প ভাইরাস’।

সূত্রঃ জাগোনিউজ