রাঙামাটিতে করোনাভাইরাস ছড়াচ্ছে দ্রুত

অনলাইন ডেস্কঃ
বেশ কয়েকটি জেলার চাইতে রাঙামাটিতে দ্রুত বাড়ছে নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমিতের সংখ্যা।

রোববার চট্টগ্রাম ভেটেনারি এন্ড অ্যানিমেল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাব থেকে আসা রিপোর্টের ১৬টি পজিটিভ শনাক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে জেলায় রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫১১ জনে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে জেলা সিভিল সার্জন অফিসের করোনা বিষয়ক ফোকাল পারসন ও মেডিকেল অফিসার ডা. মোস্তফা কামাল জানিয়েছেন, রোববার সকালে সিভাসু ল্যাব থেকে রাঙামাটিতে ৩৯টি রিপোর্ট এসেছে; যার ১৬টিই পজিটিভ। নতুন শনাক্তদের কয়েকজন পুলিশ সদস্যসহ সদর উপজেলার ১৩ জন এবং দুই স্বাস্থ্যকর্মীসহ নানিয়ারচর উপজেলার ৩ জন রয়েছে।

“রোববার আসা রিপোর্টের নমুনা ১৭ জুলাই পাঠানো হয়েছিল।”

গত ৬ মে রাঙামাটিতে প্রথম চারজনের কোভিড-১৯ শনাক্তর খবর পাওয়া যায়। এর আগেই সব জেলায় এ ভাইরাস আক্রান্ত শনাক্ত হয়। তবে এরই মধ্যে রোগী শনাক্ত সংখ্যার হিসাবে রাঙামাটি ১৯টি জেলাকে ছাড়িয়ে গেছে।

আইইডিসিআর এর তথ্য মতে সেই জেলাগুলোর মধ্যে সাতক্ষীরা ৪৮৭ জন, বরগুনায় ৪৩৮ জন, ভোলায় ৪২৩ জন, খাগড়াছড়িতে ৪১৪ জন, বাগেরহাটে ৩৯৪ জন, চুয়াডাঙ্গায় ৩৬৪ জন, নীলফামারীতে ৩৫৩ জন, নাটোরে ৩৫০ জন, মাগুরায় ৩০৩ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২৯১ জন, গাইবান্ধায় ২৮৮ জন, শেরপুরে ২৬৭ জন, ঝালকাঠিতে ২৪২ জন, পিরোজপুরে ২১৮ জন, ঠাকুরগাঁওয়ে ২০৬ জন, কুড়িগ্রামে ১৪৯, পঞ্চগড়ে ১৪৬, লালমনিরহাটে ১২৬ জন এবং মেহেরপুরে ১২৫ জন রোববার পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছে।

রাঙামটিতে ৩৬৭ জন করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। জেলায় প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে আছেন ৯ জন এবং এ রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৮ জন। এছাড়া পরীক্ষার জন্য রাঙামাটি থেকে ২ হাজার ৬২৯টি নমুনা পাঠানো হয়েছে। এরমধ্যে রিপোর্ট এসেছে ২ হাজার ৫২৩টির, যার মধ্যে ৫১১টি পজিটিভ বলছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

সূত্রঃ বিডিনিউজ