পাকিস্তানে প্রাচীন বৌদ্ধ ভাস্কর্য ভাঙায় গ্রেপ্তার ৪

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশে নির্মাণ কাজের সময় পাওয়া প্রাচীন বৌদ্ধ ভাস্কর্য ভাঙার দায়ে চার ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার প্রদেশটির মারদান জেলার তখতভাই থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে খাইবার পাখতুনখোয় (কেপি) পুলিশ, জানিয়েছে ডন।

এদিন সকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দেখা যায়, এক ব্যক্তি বড় একটি হাতুড়ি নিয়ে প্রমাণ আকারের একটি বৌদ্ধ মূর্তি ভাঙছে, যার কিছু অংশ তখনও মাটির মধ্যে গাথা রয়েছে। ভাস্কর্যটি ধ্বংস করার সময় কিছু লোক ভাঙার দৃশ্য দেখছিল আর অন্যরা ঘটনাটির ভিডিও করছিল।

খাইবার পাখতুন খোয়ার প্রত্নতত্ত্ব ও জাদুঘর পরিচালক ডক্টর আব্দুল সামাদ ভাস্কর্য ভাঙার এই ঘটনাটিকে ‘অপরাধ’ অভিহিত করে বলেছেন, “যে কোনো ধর্মকে অসম্মান করা অসহনীয়।”

পরে কেপি পুলিশ এক টুইটে জানায়, সন্দেহভাজনদের চিহ্নিত করে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং ভেঙে ফেলা বৌদ্ধ ভাস্কর্যটি উদ্ধার করা হয়েছে।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, পাকিস্তানের পুরাকীর্তি আইনের অধীনে গ্রেপ্তারদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

‘তড়িৎ পদক্ষেপ’ নিয়ে সন্দেহভাজনদের গ্রেপ্তার করায় পুলিশের প্রশংসা করেছেন ড. সামাদ।

ভাস্কর্যটি গান্ধার সভ্যতার একটি পুরাকীর্তি এবং এটি প্রায় এক হাজার ৭০০ বছরের পুরনো বলে জানিয়েছেন তিনি। ভাস্কর্যটি যে জায়গা থেকে পাওয়া গেছে সেই স্থানটি পুলিশ ঘিরে রেখেছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

সূত্রঃ বিডিনিউজ