ভারত চায়, সোমবারই বিশ্বকাপ বাতিলের ঘোষণা দিক আইসিসি

ক্রীড়া ডেস্কঃ
একে একে পার হয়ে যাচ্ছে দিন। কিন্তু ক্রিকেটের আন্তর্জাতিক সংস্থা আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে কোনো সিদ্ধান্তই জানাচ্ছে না। হবে কি হবে না- সে কথা কিছুই বলছে না। বিশ্বকাপ হলে সেটাও বলে দিক, না হলেও বলে দিক। এত ঘোরানোর মানে কি?

প্রশ্নটা কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই)। কারণ, আইসিসির এই এক সিদ্ধান্তের ওপরই নির্ভর করছে তাদের আইপিএলের ভাগ্য। গত প্রায় দুই মাস ধরেই এ নিয়ে সময় ক্ষেপণ করছে আইসিসি। বিশ্বকাপ না হওয়ার সিদ্ধান্ত হলে ভারত আইপিএল আয়োজন করবে। হোক তা নিজেদের দেশে কিংবা বিদেশের মাটিতে।

বিসিসিআই’ই নয় শুধু প্রায় সবাই নিশ্চিত- টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন প্রায় অসম্ভব। তাহলে কেন আইসিসি এত বিলম্ব করছে? ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের কর্মকর্তা কিংবা আইপিএলের সঙ্গে জড়িত খেলোয়াড়-কর্মকর্তা সবাই তাই বেশ বিরক্ত আইসিসির ওপর।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড তাই চায়, সোমবার আইসিসির যে বৈঠক রয়েছে, সেখানেই নির্ধারণ হয়ে যাক বিশ্বকাপের ভাগ্য এবং আইসিসি ঘোষণা দিক, করোনার কারণে এবারের বিশ্বকাপ বাতিল।

অক্টোবরের ১৮ থেকে নভেম্বরের ১৫ তারিখ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। কিন্তু আয়োজক অস্ট্রেলিয়া এখন করোনার কারণে রয়েছে বেশ বিপর্যস্ত অবস্থায়। বিশেষ করে দেশটিতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ তৈরি হওয়ার কারণে দেশটি রয়েছে বেশ আতঙ্কে। এ পরিস্থিতিতে বিশ্বকাপ আয়োজন করা দেশটির পক্ষে সম্ভবই নয়।

এদিকে ভারতের মাটিতেও আইপিএল আয়োজন করা সম্ভব নয়। কারণ, দেশটিতে এরই মধ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১০ লাখ পার হয়ে গেছে। এ কারণে বিকল্প হিসেবে আরব আমিরাতে আইপিএল আয়োজন করার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছে ভারত। ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে তারা আইপিএল শুরু করতে চায়। কিন্তু সব কিছুই থমকে আছে আইসিসির একটি সিদ্ধান্তের ওপর।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের অ্যাপেক্স কাউন্সিলের এক সদস্য প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়াকে বলেন, ‘আমাদের প্রথম পদক্ষেপ ছিল এশিয়া কাপ স্থগিত করা। সেটা করেছি। এখন আমরা তাকিয়ে আছি আইসিসির দিকে। তারা বিশ্বকাপ স্থগিতের ঘোষণা দিলেই আমরা আইপিএল নিয়ে এগিয়ে যাবো। আমরা বুঝতে পারছি না, কেন আইসিসি এটা নিয়ে সময় নষ্ট করছে। যখন অস্ট্রেলিয়াই বলছে যে, তাদের পক্ষে বিশ্বকাপ আয়োজন করা সম্ভব নয়।’

সোমবারের আইসিসির বৈঠকে বিশ্বকাপের সিদ্ধান্ত ছাড়াও সংস্থাটির চেয়ারম্যানের পদে মনোনয়ন চূড়ান্ত হবে বলেও ধারণা করা হচ্ছে।

সূত্রঃ জাগোনিউজ