রামুতে ১ লাখ ৮০ হাজার ইয়াবা সহ তিন মাদক পাচারকারী আটক

খালেদ শহীদ, রামুঃ
রামুতে ১ লাখ ৮০ হাজার ইয়াবা সহ তিন মাদক পাচারকারীকে আটক করেছে কক্সবাজার জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

এসময় পাচারকারীদের ব্যবহৃত একটি ডিসকভার মোটর সাইকেলও জব্দ করা হয়। এ ঘটনায় আটক দুই মাদক পাচারকারী ও পলাতক আরও ৫ জনের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেছে কক্সবাজার জেলা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মানস বড়ুয়া।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার মধ্যরাতে রামু উপজেলার কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের শেষ প্রান্তে নাইক্ষ্যংছড়ি দোছড়ি এলাকার ইয়াবা ব্যবসায়ী আনোয়ার সাদেকের বাড়িতে অভিযান চালায়, কক্সবাজার জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পরিদর্শক মানস বড়ুয়ার নেতৃত্বে পুলিশ পরিদর্শক রূপল চন্দ্র দাস, পুলিশ পরিদর্শক এস এম মিজানুর রহমান সহ ডিবি পুলিশের একটি দল।

পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আনোয়ার সাদেক বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। এ সময় পুলিশ আনোয়ার সাদেকের মা মাহমুদা বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদ করে, জানতে পারেন তার ছেলে ইয়াবা ব্যবসায় জড়িত। তাদের বাড়ি থেকে ১ লাখ ইয়াবা উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, গত ১৮ জুন বৃহস্পতিবার বিকালে রামু উপজেলার গর্জনিয়া ইউনিয়ন থেকে মোটর সাইকেলে করে দুই যুবক ইয়াবা নিয়ে রামু বাইবাস যাচ্ছে। গোপনে খবর পেয়ে, রামু উপজেলার কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের পূর্ব কাউয়ারখোপ এলাকায় অভিযান চালিয়ে মোটর সাইকেল আরোহী দুইজনকে থামতে নির্দেশ দেন। পুলিশ দেখে পালাতে চেষ্টা করলেও, পুলিশের হাতে ধরা পড়ে মোটর সাইকেল আরোহী আবদুর রশিদ ও এনামুল হাসান নামে দুই জন। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করে, কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের সীমান্ত এলাকার আনোয়ার সাদেকের কাছে ইয়াবা সংরক্ষিত আছে।

পুলিশ আরও জানায়, তারা পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে, তারা আনোয়ার সাদেক, মো. শাহজাহান, নুর আলম ও কামালের কাছ থেকে ইয়াবা সংগ্রহ করেছে। আটক যুবকরা বান্দরবানের আলীকদম ইউনিয়নের উত্তর-পূর্ব পাল পাড়ার (লক্ষী বাজার) হাজী কবির সওদাগরের ছেলে মো. নবী’র কাছে যাচ্ছিল।

আটক বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার আলীকদম ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের আমতলী পাড়ার আবদুল মোতালেবের ছেলে আব্দুর রশিদ (২৬), উখিয়া উপজেলার কুতুপালং লম্বাশিয়া শরণার্থী ক্যাম্পের ১৫নং এফ ব্লকের মকতুল হোসেনের ছেলে এনামুল হাসান (২২) ও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার দোছড়ি ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের জারুলিয়াছড়ি এলাকার মৃত মো. ইসলামের স্ত্রী মাহমুদা বেগম (৪১)। তাদের বিরুদ্ধে কক্সবাজার জেলা গোয়েন্দা পুলিশ মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করেছে।

মামলার পলাতক আসামীরা হলো, বান্দরবানের আলীকদম ইউনিয়নের উত্তর-পূর্ব পাল পাড়ার (লক্ষী বাজার) হাজী কবির আহমদের ছেলে মোহাম্মদ নবী (৩৬), নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার দোছড়ি ইউনিয়নের মৃত মো. ইসলামের ছেলে আনোয়ার সাদেক (২৪), কক্সবাজারের রামু উপজেলার কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের বেঙঢেবা এলাকার কালা মিয়া’র ছেলে মো. শাহজাহান (৩৯), একই ইউনিয়নের হাজী পাড়ার মালেকুজ্জামানের ছেলে নুর আলম (৪১) ও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার কম্বনিয়া এলাকার কামাল ২৬)।