মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করেছে স্পেন

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
স্পেনে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বুধবার এক ডিক্রি জারি করে এই নির্দেশনা জারি করেছে। প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের বিস্তাররোধ করতেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। খবর সিএনএন।

লোকজনকে মাস্ক পড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বিশেষ করে যেসব স্থানে একজন থেকে আরেকজনের দুই মিটার দূরত্ব নিশ্চিত করা সম্ভব নয় সেখানে অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে।

ছয় বছরের বেশি বয়সী সবাইকে নতুন এই নির্দেশনা মেনে চলতে হবে। তবে শারীরিক প্রতিবন্ধী বা শ্বাসকষ্টের সমস্যা আছে এমন লোকজন এই আওতার বাইরে থাকবে।

লোকজন যে কোনো ধরনের মাস্ক ব্যবহার করতে পারবেন। নাক এবং মুখ ঢেকে রাখা যায় এমন যে কোনো ধরনের মাস্ক পরার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

যদিও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় স্বাস্থ্যসম্মত ও সার্জিক্যাল মাস্ক পরার প্রতি বেশি জোর দিয়েছে। এদিকে, স্পেনের জরুরি অবস্থা নিয়ে দেশটির সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে আজ বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো স্যানচেজ।

জরুরি অবস্থার সময় আরও বাড়ানোর বিষয়ে ভোট অনুষ্ঠিত হবে। গত ১৪ মার্চ দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়। প্রায় চার দফা জরুরি অবস্থার মেয়াদ বাড়ানো হয়।

দেশটিতে প্রায় ১০ সপ্তাহ ধরে জরুরি অবস্থা জারি রয়েছে। কড়াকড়ি আরোপের মাধ্যমে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের বিস্তার নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হচ্ছে। দেশটিতে নতুন করে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা কমতে শুরু করেছে।

গত ৩১ ডিসেম্বর চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম করোনার উপস্থিতি ধরা পড়ে। এখন পর্যন্ত বিশ্বের ২১৩টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাস।

এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুতে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এই তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে স্পেন।

দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৭৮ হাজার ৮০৩। এর মধ্যে মারা গেছে ২৭ হাজার ৭৭৮ জন। দেশটিতে বর্তমানে করোনার অ্যাক্টিভ কেস ১ লাখ ৯৬ হাজার ৯৫৮টি। তবে ৫৪ হাজার ৬৭ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

সূত্রঃ জাগোনিউজ