রামুতে পবিত্র রমজানের দু’দিন আগে টিসিবি’র পণ্য পেয়েছে সাধারণ মানুষ

খালেদ শহীদ, রামুঃ
রামুতে পবিত্র রমজানের দুদিন আগে ন্যায্যমূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় পন্যক্রয় সুবিধা পেয়েছে সাধারণ মানুষ। করোনাভাইরাসের মহাদূর্যোগের মধ্যে নিম্নমধ্যবিত্ত ও নিম্নআয়ের সাধারণ মানুষের জন্য রামুতে ন্যায্যমূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য বিক্রি করছে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। করোনার মহা দূর্যোগ সময়ে ন্যায্য মূল্যের পন্য ছোলা, চিনি, সয়াবিন তেল, মসুর ডাল ও খেজুর ক্রয়ের সুবিধা পেয়ে নিম্নমধ্যবিত্ত ও নিম্নআয়ের মানুষরা উচ্ছ্বসিত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২৩ এপ্রিল) সকাল ১০টায় রামু উপজেলার চৌমুহনী ষ্টেশনে টিসিবির পন্যের বিক্রি উদ্বোধন করেন, ইউএনও প্রনয় চাকমা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান, সূর্যের হাসি ক্লিনিক ব্যবস্থাপক খন্দকার দেলোয়ার হোসেন, টিসিবির ডিলার মেসার্স মাষ্টার বিল্ডার্সের সত্ত্বাধিকারী মাষ্টার নুরুল আমিন ও মেসার্স আমিন বাণিজ্য সংস্থার সত্ত্বাধিকারী মো. শফিউল আমিন প্রমুখ।

ন্যায্যমূল্যে টিসিবির পণ্য বিক্রি হবে জেনে, বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রামু চৌমুহনীতে নিম্নমধ্যবিত্ত ও নিম্নআয়ের মানুষরা ভিড় করেন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে টিসিবির ডিলার মাষ্টার নুরুল আমিন ও মো.শফিউল আমিন ন্যায্যমূল্যে পণ্য বিক্রি শুরু করেন। ছোলা ১ কেজি ৬০ টাকা, চিনি ১ কেজি ৫০ টাকা, সয়াবিন তেল ১ লিটার ৮০ টাকা, মসুর ডাল ১ কেজি ৫০ টাকা ও খেজুর ১ কেজি ১২০ টাকা দরে বিক্রি করা হয়েছে বলে জানান, মেসার্স মাষ্টার বিল্ডার্সের সত্ত¡াধিকারী মাষ্টার নুরুল আমিন।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের মহাদূর্যোগের সময়ে সরকারিভাবে নির্ধারিত দরে সাধারণ মানুষের মাঝে ন্যায্য মূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী বিক্রি কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। আরো কয়েকদিন টিসিবির পণ্য বিক্রি করা হবে। পবিত্র রমজান মাসের শুরুতে সাধারণ মানুষের মাঝে ন্যায্যমূল্যে পণ্যক্রয় সুবিধা দিয়েছে সরকার। করোনা ভাইরাসের দূর্যোগে কর্মহীন হয়ে পড়ায় নিম্ন আয়ের মানুষগুলো আর্থিক কষ্টে দিন কাটাচ্ছেন। তাদের কথা বিবেচনায় রেখেই এই কষ্টকর সময়ে টিসিবির পণ্য বিক্রির ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

মেসার্স আমিন বাণিজ্য সংস্থার সত্ত্বাধিকারী মো. শফিউল আমিন জানান, বাজারে চিনি, মসুর ডাল, সয়াবিন তেলের দাম টিসিবির চাইতে অনেক বেশি। ফলে সাধারণ মানুষ বাজার দরের চাইতে কম দরে টিসিবির পণ্য কিনতে পারছে। তিনি জানান, কর্মহীন নিম্নআয়ের মানুষের কথা চিন্তা করেই, আমরা রামুর ডিলাররা সম্মিলিত সিদ্ধান্তে চট্টগ্রাম ডিপো থেকে টিসিবির মালামাল উত্তোলন করছি। লকডাউনের এ সময়ে প্রশাসনের আন্তরিক সহযোগিতায় রামুতে টিসিবির পণ্য এনে ন্যায্যমূল্যে বিক্রি করতে পারছি। রমজানে নিত্যপণ্যের বাজার সাধারণ মানুষের কাছে সহনীয় রাখতেই সরকার টিসিবির পণ্য ক্রয় সুবিধা চালু করেছেন।