বড়বাজারে মৎস্য ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির অফিস উচ্ছেদের প্রতিবাদে বাজার বন্ধ ঘোষণা

এম.এ আজিজ রাসেল:
শহরের বড় বাজারস্থ মৎস্য ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির অফিস উচ্ছেদ করার প্রতিবাদে সমিতি নেতৃবৃন্দ বিক্ষোভ প্রদর্শন, সাংবাদিক সম্মেলন ও বাজার অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ওইদিন দুপুরে জেলা প্রশাসনের নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেট মোজাম্মেল হক রাসেলের উপস্থিতিতে পৌরসভার একদল কর্মী ও পুলিশ নিয়ে অফিস ঘরটি গুড়িয়ে দেন। এ সময় কক্সবাজার পৌরসভার সচিব মোহাম্মদ সামছুদ্দিন ও কাউন্সিলর হেলাল উদ্দিন কবির সাথে ছিলেন।

এদিকে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনাকালে সমবায় সমিতির নেতৃবৃন্দ বাঁধা সৃষ্টি করে উত্তেজনা করেন। তাদের দাবি, পৌর মেয়র মাহবুবুর রহমান চৌধুরীর অনুমতি সাপেক্ষে ও সহযোগিতায় তারা অফিস ঘরটি তৈরি করেছেন। মেয়র নিজেই অফিস ঘরটি পরিদর্শন করেছেন। যা বর্তমান পৌর পরিষদের প্রায় কাউন্সিলর অবগত রয়েছেন। এমতাবস্থায় কোন ধরণের না জানিয়ে হুট করে পরিচালিত উচ্ছেদ অভিযানে তাদের অপুরণীয় ক্ষতি হয়েছে। সমিতি নেতৃবৃন্দ উচ্ছেদকালে বিক্ষোভ করে তারা কয়েকশত ব্যবসায়ি নিয়ে কক্সবাজার পৌরসভায় যান। সেখানে উচ্ছেদ অভিযানটি অযুক্তিক দাবিতে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন। পরে একই দিন বিকেলে বড় বাজারস্থ অফিস এলাকায় সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে সমিতির সভাপতি সিরাজুল মোস্তফা ও সাধারণ সম্পাদক ছৈয়দ আকবর বলেন, বড় বাজার মৎস্য ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতি ২০১০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এটি সরকার অনুমোদিত সমিতি। যার রেজি: নং: ৪৩৫/১৩। বুধবার দুপরে পরিচালিত অভিযানটি বিনা নোটিশে করা হয়েছে।

পৌরসভার মেয়র অনুমোদিত অফিস ঘরটি গুড়িয়ে দেয়াতে তাদের বিভিন্ন মালামাল ভাংচুর হয়েছে। তাছাড়া ক্যাশে থাকা সমিতির লাখ টাকা লুট হয়েছে বলে তারা লিখিত বক্তব্যে দাবি করেছেন। তারা আরো বলেন, উপরোক্ত বিষয়ে তাদের বিভিন্ন কর্মসুচি চলমান থাকবে। বৃহস্পতিবার ২৮ জুলাই থেকে বড় বাজারের তরি-তরকারি, শুটকি-মাংস ও কাচা মাছ বাজার অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ থাকবে। এতে সকল ব্যবসায়ি ও সমিতি নেতৃবৃন্দের সহযোগিতা কামনা করা হয় এবং কর্মসুচি পালনের আহবান জানানো হয়।