রামুর মেরংলোয়া গ্রামে কর্মহীন প্রতিবেশীদের ত্রাণ বিতরণ করেছে স্বজনরা

খালেদ শহীদঃ
রামুতে করোনা ভাইরাসে কর্মহীন নিন্ম আয়ের প্রতিবেশীর পাশে এগিয়ে এসেছে গ্রামের আত্মীয়-স্বজনরা। গ্রামের উদ্যোমী কয়েকজনের নিজস্ব তহবিল ও আত্মীয়-স্বজন থেকে সংগৃহীত অর্থদিয়ে গ্রামের ৬৫ অসহায় ও দুস্থ পরিবারকে ত্রাণ দেয়া হয়েছে। রোববার (৫ এপ্রিল) বিকালে রামু উপজেলার ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের মেরংলোয়া বড়ুয়া পাড়ায় এসব ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। প্রত্যেকটি পরিবারকে পাঁচ কেজি চাল, এক কেজি মশুর ডাল, এক কেজি পেঁয়াজ, এক লিটার তেল, এক কেজি আলু, এক কেজি আটা ও একটি সাবান দেয়া হয়েছে।

ত্রাণ বিতরণ মানবিক কর্মের অন্যতম উদ্যোক্তা শিক্ষক দম্পতি স্বপন বড়ুয়া ও শাপলা বড়ুয়া জানান, করোনা ভাইরাসের মহাদূর্যোগের সময়ে আমাদের মেরংলোয়া গ্রামের বড়ুয়া পাড়ার নিম্নআয়ের মানুষগুলো কর্মহীন হয়ে অভাব-অনটনের মধ্যে দিনযাপন করছে। এদের অনেকে রিক্সা চালক, ভ্যান গাড়ি চালক, দিনমুজুর, গাড়িশ্রমিক। প্রতিবেশী ও নিকট স্বজনদের দূর্দশায় পাড়ার কয়েকজন মিলে তাদের পাশে দাঁড়াতে চেষ্টা করেছি। মানুষ মানুষের জন্যে এ ভাবনা থেকে মাত্র ৬৫ পরিবারের হাতে ক্ষুদ্র প্রয়াসে খাবার সামগ্রী তোলে দিতে পেরেছি।

শিক্ষক দম্পতি বলেন, গ্রামের অনেকে এ মহতী উদ্যোগে এগিয়ে এসেছেন। আমাদের পূজনীয় ভিক্ষু সহ শিক্ষক, নিমার্ণ শ্রমিক, হাপাতালের নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী, এনজিও কর্মী, ইউপি সচিব আর্থিক সহায়তা দিয়েছে। তাদের সহযোগিতায় ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম সম্পন্ন করতে পেরেছি। সমাজের বিত্তবানদেরও এরকম মহতী উদ্যোগে সম্পৃক্ত হওয়া উচিৎ বলে মনে করেন, এ শিক্ষক দম্পতী।

প্রতিবেশী ও নিকট স্বজনদের ত্রাণ বিতরণের জন্য আর্থিকভাবে সহায়তা দিয়েছেন, রামু শান্তিরদূত বিহার অধ্যক্ষ ক্ষান্তি পঞা ভিক্ষু (আাসন ভিক্ষু), শিপুলু বড়ুয়া মিস্ত্রি, শিক্ষক স্বপন বড়ুয়া, ভূবন বড়ুয়া, সংগীত বড়ুয়া, চম্পক বড়ুয়া, শাপলা বড়ুয়া, এনজিওকর্মী কাকন বড়ুয়া, স্বাস্থ্যকর্মী মিন্টু বড়ুয়া, কাজলী বড়ুয়া, রিটু বড়ুয়া, প্রচারকর্মী লিটন বড়ুয়া প্রমুুখ।