গর্জনিয়া বাজারে পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান

হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী :
কক্সবাজারের অন্যতম প্রাচীন হলো রামুর গর্জনিয়া বাজার। এ বাজার ইতিহাস সমৃদ্ধ। গর্জনিয়া-কচ্ছপিয়া ইউনিয়ন ছাড়াও নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ও দোছড়ি ইউনিয়নের শত শত মানুষকে গর্জনিয়া বাজারের উপর ভরসা রেখে চলতে হয়। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে বাজারটি ময়লা-আবর্জনায় ভরপুর ছিল।

করোনাভাইরাস ইস্যুকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) দিনব্যাপী গর্জনিয়া বাজারে চলে পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান। অভিযানে সরাসরি নেতৃত্বদেন গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির আইসি, পুলিশ পরিদর্শক মো. আনিছুর রহমান। এসময় আইসি নিজেই জীবাণুনাশক স্প্রে করেন। এবং বাজার পরিস্কারকদের নিকনির্দেশনা দেন। পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযানে তদারককারী ছিলেন- বাজার ইজারাদার শাহ আলম ও কচ্ছপিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক এম সেলিম।

এম. সেলিম জানান- কক্সবাজার ৩ (সদর-রামু) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমলের নির্দেশে তাঁরা বাজার পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালনা করেছেন।

বাজার ইজারাদার শাহ আলম বলেন- পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালনার পরও নর্দমায় পানি আটকে আছে। তা সরাতে হবে। তার জন্য নর্দমা সচল থাকতে হবে।

গর্জনিয়া ইউনিয়ন বীট পুলিশিং ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন- এই পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযানকে সকলেই সাধুবাদ জানিয়েছেন। তবে স্থায়ীভাবে নর্দমায় পানি আটকে থাকলে মাঝে মধ্যেই গর্জনিয়া বাজারে উৎকট দুর্ঘন্ধ ছড়াবে। তখন মানুষ নানা রোগে আক্রান্ত হতে পারে। প্রয়োজনে নর্দমা সংস্কার করে পানি চলাচল স্বাভাবিক রাখতে হবে। এ ব্যাপারে ইউএনওর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।