কক্সবাজারে করোনা শনাক্ত সেই বৃদ্ধাকে ঢাকায় রেফার্ড

অনলাইন ডেস্কঃ
কক্সবাজার সদর হাসপাতালে করোনা আইসোলেশন ইউনিটে চিকিৎসাধীন সেই বৃদ্ধাকে (৭৫) ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছে। তার স্বাস্থ্যের অবনতি দেখা দেয়ায় উন্নত চিকিৎসার্থে ঢাকার উত্তরার ৬ নম্বর সেক্টরস্থ কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে তাকে পাঠানো হচ্ছে বলে জানিয়েছে বৃদ্ধার পরিবার। তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন জেলা সদর হাসপাতালের তত্ত্ববধায়ক ডা. মোহাম্মদ মহিউদ্দিনও।

ডা. মোহাম্মদ মহিউদ্দিন বলেন, করোনা আক্রান্ত বৃদ্ধা আগে থেকেই এজমাসহ নানা জটিল রোগে ভুগছিলেন। পুরোনো এসব রোগসহ করোনার সমন্বিত চিকিৎসা কক্সবাজার সদর হাসপাতালে কঠিন হয়ে পড়েছে। তাই বৃদ্ধার স্বজনদের সঙ্গে পরামর্শ করে তাকে ঢাকাস্থ কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। করোনা চিকিৎসা সেবায় কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতাল শীর্ষে রয়েছে।

এদিকে, হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা বৃদ্ধার বড় সন্তান, কক্সবাজারের এক কলেজের অধ্যক্ষ দাবি করেছেন, ঢাকা থেকে আসা চিকিৎসকদের দেয়া কিছু ওষুধ খাওয়ার পর তার মায়ের অবস্থার অবনতি হতে থাকে। শুক্রবার দিনগত রাত হতে অন্যান্য অসুখের সঙ্গে ডায়রিয়া শুরু হয়েছে। চিকিৎসকদের পরামর্শ মতো, তার মাকে অ্যাম্বুলেন্সে শনিবার (২৮ মার্চ) বিকেলে ঢাকার পথে রওয়ানা দেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ ফেব্রুয়ারি উমরাহ হজ করতে গিয়ে গত ১৩ মার্চ বৃদ্ধা তার সন্তানসহ দেশে ফেরেন। পরে তিনি গুরুতর অসুস্থ হলে বিদেশ থেকে আসার বিষয়টি গোপন রেখে তাকে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গত ২২ মার্চ তার বিদেশ ফেরতের তথ্য জেনে চিকিৎসকেরা তার শরীরের স্যাম্পল সংগ্রহ করে টেস্টের জন্য ঢাকার আইইডিসিআর ল্যাবে পাঠান। গত ২৪ মার্চ টেস্ট রিপোর্ট আসলে সেখানে তার শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া কথা জানানো হয়। এরপর থেকে গত ৪ দিন যাবৎ করোনাভাইরাস আক্রান্ত বৃদ্ধাকে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল।

সূত্রঃ জাগোনিউজ