বদরখালী চলছে মাদকের রমরমা বাণিজ্য, প্রশাসন নির্বিকার

এ.এম হোবাইব সজীব,চকরিয়া:
কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার বদরখালী ইউনিয়নে চলছে মাদকের অবাধ বাণিজ্য। ইউনিয়নে বিভিন্ন স্পটে গড়ে উঠা এসব মাদকের আখড়ায় যাতায়াত করে এলাকার যুব সমাজ বিপদগামী হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন সচেতন মহল।

প্রবাদ আছে“এখন যৌবন যার যুদ্ধে যাবার শ্রেষ্ঠ সময় তার”। কিন্তু দিনে দিনে নৈতিক অবক্ষয়ের সূত্র ধরে যুব সমাজ আজ ধবংসের মুখোমুখি।

জানা যায়, চকরিয়া উপজেলার বদরখালী ইউনিয়ন যেন নেশার ইউনিয়ন পরিণত হচ্ছে দিন দিন হাত বাড়ালে মিলছে গাঁজা, ফেন্সিডিল, হেরোইন, বাংলা মদ, ইয়াবাসহ সকল প্রকারের মাদক। হাতের নাগালে পেয়ে যুব সমাজ ধাবিত হচ্ছে ধবংসের দ্বারপ্রান্তে। ইতোমধ্যে পুলিশের অভিযানে মদ, গাঁজাসহ কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ীকে কারাগারে প্রেরণ করলে তারা জামিনে এসে আবার জড়িয়ে পড়ছে মাদক ব্যবসায়।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ইয়াবা সম্রাট জিয়াবুল করিম মাধ্যমে ইউনিয়নের মাদকের অবাধ বাণিজ্য ছড়িয়ে পড়েছে। তার আখড়ায় প্রায় প্রতিদিন মাদকসেবী লোকজনের আনা-গোনা বেড়েছে বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা।

বদরখালী ইউনিয়নে আনুমানিক এক”শতাধিক মাদক সেবন রয়েছে। এদের মধ্যে স্কুল-কলেজ পড়ুয়া ছাত্র বেকার যুবক আরো আছেন ব্যবসায়ী, রাজনৈতিক কর্মীরা। এদের মধ্যে অধিকাংশ ফেন্সিডিল, গাঁজা হেরোইনও ইয়াবা আসক্ত বেশি বলে জানা গেছে। পুলিশের নিরব ভূমিকা রহস্যজনক বলে মনে করে সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসী।

এ ঘটনায় স্থানীয় জনঘণ ও জনপ্রতিনিধিরা উদ্ধিগ্ন হয়ে পড়েছে বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সাধারণ লোকজন অভিযোগ করেন, মাদক ব্যবসাযীদের ব্যাপারে অভিযোগের পাহাড় জমলেও তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক কোন ব্যবস্থা না নেওয়ায় তারা দিন দিন বেপরোয়া হয়ে উঠছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
এলাকার সচেতন মহল, অভিলম্বে মাদক ব্যবসা বন্ধে এসব এলাকায় অভিযান জোরদার করতে প্রশাসনের তড়িৎ হস্তেক্ষেপ চায়।

এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে চকরিয়া থানার ওসি জহিরুল ইসলাম খান আমাদের রামু ডটকমকে জানান, মাদকের ব্যাপারে কোন ছাড় নাই, অভিযোগ পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।