স্থায়ী হচ্ছেন প্রাথমিকের অস্থায়ী প্রধান শিক্ষকরা

অনলাইন ডেস্কঃ
চলতি দায়িত্বে থাকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের চাকরি দ্রুতসময়ে স্থায়ীকরণসহ ১৫ বিষয় বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর (ডিপিই)।

বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) ডিপিইতে আয়োজিত এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালায় দেশের সব বিভাগীয় উপপরিচালক ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তারা অংশ নেন। মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিতকরণ সম্পর্কিত কর্মশালায় এ সিদ্ধান্তসমূহ নেয়া হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আকরাম আল হোসেন।

জানা গেছে, ডিপিইতে আয়োজিত কর্মশালায় ১৫ বিষয় বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত হয়েছে। এরমধ্যে শ্রেণি পাঠদানকালে শ্রেণি কক্ষে মোবাইল ব্যবহার না করা, সামাজিক মাধ্যম যেমন ফেসবুক, টুইটার প্রভৃতিতে কোনো রকম উস্কানিমূলক/অকর্মচারীসূলভ পোস্ট না করা, দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকগণকে স্থায়ীভাবে পদোন্নতির লক্ষ্যে তালিকা দ্রুত প্রেরণ করা, প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণিকক্ষ সজ্জিতকরণসহ অন্যান্য মেরামত কাজের অর্থ সঠিক সময়ে ও সঠিকভাবে ব্যয় করা, বিদ্যালয়ে প্রদানকৃত ল্যাপটপ ও মাল্টিমিডিয়া ব্যবহার করে পাঠদান কার্যক্রম পরিচালনা করা, প্রতিদিন সব শিক্ষার্থীদেরকে এক পৃষ্ঠা হাতের লেখা বাসার কাজ দেয়া, নিয়মিত তা মূল্যায়ন করাসহ ১৫ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

কর্মশালার সভাপতিত্ব করেন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ। সভায় প্রথমেই সচিব এবং মহাপরিচালকের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী লেখা প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের উদ্দ্যেশে লেখা পত্রটি অতি অল্পসময়ে শিক্ষার্থীদের হাতে পৌঁছানোর জন্য মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা, প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষকদের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানানো হয়।

সূত্রঃ জাগোনিউজ