কক্সবাজারে আনন্দ ভ্রমণ রূপ নিল বিষাদে

অনলাইন ডেস্কঃ
স্ত্রীকে নিয়ে ঢাকা থেকে কক্সবাজারে আনন্দ ভ্রমণে এসেছিলেন ফেরদৌস আলম খান সৌরভ (৩৫)। কিন্তু সেই আনন্দ বিষাদে রূপ নিয়েছে। শুক্রবার (১৩ মার্চ) রাত সাড়ে ৯টার দিকে সৈকতের সুগন্ধা পয়েন্টে খোলা আকাশের নিচে ভ্যান গাড়িতে বিক্রি করা ‘ফিশ ফ্রাই’ (ভাজা মাছ) খাওয়ার পর সৌরভ অসুস্থ হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন।

সৌরভ সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার মসজিদ সড়ক এলাকার মৃত নবিউল আলম খানের ছেলে। তিনি চাকরি সূত্রে স্ত্রীকে নিয়ে ঢাকার মিরপুর-১ আনসার ক্যাম্প আহম্মদ নগর পাইকপাড়া এলাকায় থাকতেন। স্বামীর আকস্মিক মৃত্যুতে স্ত্রী ফারজানা আকতার (২৫) যেন শোকে পাথর হয়ে গেছেন।

ফারজানা জানান, শুক্রবার সকালে তারা কক্সবাজারে পৌঁছে কলাতলীর সুগন্ধা পয়েন্টের হোটেল কক্স-ইন এর ৩০৪ নং কক্ষে ওঠেন। সারাদিন সমুদ্রে গোসল ও স্বামীর হাত ধরে ঘোরাঘুরি করেন। পরে সন্ধ্যার দিকে তারা হোটেল থেকে বের হয়ে সুগন্ধ্যা পয়েন্টে গিয়ে ডাব ও ফিশ ফ্রাই খান। এর কিছুক্ষণ পর অসুস্থ বোধ করেন সৌরভ। তাকে স্থানীয় একটি ফার্মেসিতে দেখানো হলে তাকে দ্রুত হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়। অসুস্থ অবস্থায় রাত ১০টার দিকে তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসক এসএম নাওশাদ রিয়াদ বলেন, ওই পর্যটককে হাসপাতালের আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে হৃদরোগ অথবা খাবারে বিষক্রিয়ায় তার মৃত্যু হতে হয়েছে। তবে ময়নাতদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে।

কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহজাহান কবির বলেন, হাসপাতাল থেকে পর্যটকের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে ফেরদৌস আলম খান সৌরভ ও ফারজানার বিয়ে হয়। দাম্পত্য জীবনের তাদের কোনো সন্তান নেই।

সূত্রঃ জাগোনিউজ