এবার খুন হল বাইশারী ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা

হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী, নাইক্ষ্যংছড়ি :
বান্দরবান জেলা সদর থেকে প্রশিক্ষণ শেষে বাড়ি ফেরার পথে এবার খুন হলেন নাইক্ষ্যংছড়ির বাইশারী ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা মিজানুর রহমান নামের এক যুবক। সে কক্সবাজার সদর উপজেলার ইসলামাবাদ ইউনিয়নের দোয়ার নামক গ্রামের মোহাম্মদ হোছেনের ছেলে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, শুক্রবার রাতে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের ঈদগাঁও ইউনিয়নের কালিরছড়া-চান্দেরঘোনার মাঝামাঝি সরিয়া পাড়া সংলগ্ন স্থানে এ ঘটনা ঘটে। খাদের পানিতে পড়ে থাকা অবস্থায় তাঁর মৃতদেহ দেখতে পায় লোকজন।

পরে খবর পেয়ে ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের প্রধান উপপরিদর্শক মিনহাজ মাহমুদ ভূইয়ার নেতেৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মিজানের মৃতদেহ উদ্ধার করে। খুন হওয়া মিজানের শরীরের পেছনের অংশে একাধিক ছুরির আঘাত রয়েছে।

বাইশারী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম বাহাদুর আমাদের রামু ডটকমকে বলেন, মিজানুর রহমান বাইশারী ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা হিসাবে কর্মরত ছিলেন।

ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের প্রধান উপপরিদর্শক মিনহাজ মাহমুদ ভূইয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে আমাদের রামু ডটকমকে বলেন, ঘটনাস্থলের নিকটবর্তী জায়গা থেকে পরিত্যাক্ত অবস্থায় একটি মোটর সাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, নাইক্ষ্যংছড়ির বাইশারী ইউনিয়নের দুর্গম উপরচাকপাড়া গ্রামের নিজ ঘর থেকে গত ১৪ মে ভোরে বৌদ্ধ ভিক্ষু উ গাইন্দ্যার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এর আগে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলায় ও ঘাড়ে কুপিয়ে তাঁকে হত্যা করা হয়।

এ ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই পুলিশ গত ৩০ জুন রাতে বাইশারী ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সহসভাপতি মংশৈলুং মার্মার মরদেহ উদ্ধার করে। বৌদ্ধ ভিক্ষুর আদলে একই কায়দায় ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন এলাকায় এ আওয়ামীলীগনেতাকে হত্যা করে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা।

এসব ঘটনায় বাইশারীতে এখনো আতঙ্ক বিরাজ করছে। এরই মধ্যে আবার বাইশারী ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা খুন হওয়ায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন সচেতন মহল।