রামুতে সেতুর অভাবে খালে সাঁতার কেটে মৃতদেহ পারাপার

সোয়েব সাঈদ, রামুঃ
সেতুর অভাবে খালের পানিতে সাঁতার কেটে মৃতদেহ নিতে হলো স্বজনদের। হৃদয় বিদারক এ ঘটনাটি ঘটেছে কক্সবাজারের রামু উপজেলার গর্জনিয়া ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের দূর্গম জনপদ থোয়াংগেরকাটা শিয়া পাড়া গ্রামে।

জানা গেছে, ওই গ্রামের বাসিন্দা মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে পরিচিত মোজাফ্ফর আহমদ শুক্রবার (১৪ ফেব্রæয়ারি) রাত ৯ টায় মৃত্যুবরণ করেন। পরদিন শনিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) তাঁর নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয় পারিবারিক কবরস্থান সংলগ্ন মসজিদ প্রাঙ্গনে।

গর্জনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নং ওয়ার্ডের মেম্বার আবদুল জব্বার জানান, মোজাফ্ফর আহমদের মৃতদেহ নেয়ার সময় হরিণ খাইয়া নামক খাল পার হতে গিয়ে বিপাকে পড়েন নিহতের স্বজন ও এলাকাবাসী। কারণ খালের উপর স্থানীয়দের তৈরী সাঁকো থাকলেও তাতে মৃতদেহ নেয়ার মত পরিস্থিতি ছিলো না। তাই বাধ্য হয়ে খালের পানিতে নিহতের স্বজনরা সাঁতার কেটে মৃতদেহ পার করেন।

মেম্বার আবদুল জব্বার আরো জানান, ২ মাস পূর্বে রামু উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয়ের একজন প্রকৌশলী এ স্থানটি পরিদর্শন করেন। তবে এরপর কোন অগ্রগতি দেয়া যায়নি।

থোয়াংগেরকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির দাতা সদস্য আবদুল আলিম জানিয়েছেন, পার্বত্য বান্দরবানের সীমান্তবর্তী ও দূর্গম এলাকা হওয়ায় এ গ্রামটি খুবই অবহেলিত। দীর্ঘদিন এলাকাবাসী এখানে একটি সেতু নির্মাণের দাবি জানালেও তা বাস্তবায়নে জনপ্রতিনিধি এবং সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মকর্তাদের উদ্যোগ চোখে পড়েনি। এরফলে প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমে এখানে দুই পাড়ের হাজার হাজার মানুষ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। শুস্ক মৌসুমেও চাষাবাদের পানির কারনে এ খালটি পানিতে ভরপুর থাকে। যে কারনে বর্ষা ও সুষ্ক উভয় মৌসুমেই মৃতদেহ নেওয়া এবং জনসাধারণ চলাচলে চরম দুর্ভোগের শিকার হয়ে আসছে।

রামু উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসের উপ-সহকারি প্রকৌশল মোহাম্মদ মাসউদ রানা সায়েম জানান, হরিণ খাইয়া খালের এ স্থানটি তিনি ২ মাস পূর্বে দেখতে যান। কিন্তু ওই স্থানে দুপাশে সংযোগ সড়ক নেই। একারনে এখানে বিধি মোতাবেক সেতু নির্মাণ করা সম্ভব নয়। তবে স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মেম্বার আন্তরিকভাবে চেষ্টা চালিয়ে খালের ২ পাশে সংযোগ সড়ক নির্মাণ করলে ওই স্থানে সেতু নির্মাণ করা সম্ভব হবে।

এদিকে খালের পানিতে সাঁতার কেটে মৃতদেহ পারাপারের এ হৃদয় বিদারক দৃশ্যে বিষ্মিত এলাকাবাসী তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। ক্ষুব্দ জনতা অবিলম্বে এ খালে সেতু নির্মাণ করে জনদূর্ভোগ লাঘবের দাবি জানিয়েছেন।