কক্সবাজারে বেতার দিবসের অনুষ্ঠানে-ইকবাল বেতার মানুষের দুঃসময়ের বন্ধু’

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
কথামালা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান,শোভাযাত্রাসহ নানা আনুষ্ঠানিকতার মধ্যদিয়ে কক্সবাজার বেতার উদযাপন করা হয়েছে বিশ্ব বেতার দিবস।

বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে কক্সবাজার লিংকরোড সংলগ্ন বেতার প্রাঙ্গনে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

‘বেতার ও বৈচিত্র’ এ প্রতিপাদ্যে বেতারের আঞ্চলিক পরিচালক মো. ফখরুল করিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসাইন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মো. ইকবাল হোসাইন বলেন,প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় যখন বিদ্যুৎও থাকেনা তখনও বিপদগ্রস্থ মানুষ বাঁচার দিক নির্দেশনা পায় বেতার থেকে। বেতার শুধু মানুষের জীবন বাঁচায়না,এলাকার শিল্প সাহিত্য সংস্কৃতির বিকাশে অবদান রাখছে বেতার।

তিনি বলেন,বেতার হচ্ছে বিপদের বন্ধ। রাষ্ট্রের ক্রান্তিকালে রাষ্ট্রকে রক্ষা করে বেতারের মত গণমাধ্যম। আর কক্সবাজারের প্রেক্ষাপটে বেতার আরও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

এখানে অবস্থানরত বিপুল সংখ্যক রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর পাশাপাশি স্থানীয় জনসাধারণকে সচেতন করতে নানা অনুষ্ঠান প্রচার করে আসছে কক্সবাজার বেতার। যোগ করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, কক্সবাজার সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ একেএম ফজলুল হক চৌধুরী, কক্সবাজার পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট-এর অধ্যক্ষ প্রদীপ্ত খীসা,কক্সবাজার বেতার শিল্পী সমন্বয় পরিষদের সহ-সভাপতি ও শব্দায়ন-এর পরিচালক জসীম উদ্দিন বকুল, সাদারণ সম্পাদক নাট্যকার স্বপন ভট্টাচার্য্য ও ইউনিসেফের সিফোরডি স্পেশালিস্ট মো. আলমগীর। অনুষ্ঠানের শুরুতে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন উপ-আঞ্চলিক পরিচালক রিপন কুমার ভদ্র ও উপ-আঞ্চলিক প্রকৌশলী মো. রাশেদুল আজম সিকদার প্রমুখ। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে বেতারের সহকারী পরিচালক (অনুষ্ঠান) নুরুল করিম খাঁন,সংগীত প্রযোজক বশিরুল ইসলাম ও রেডিও এনাউন্সারস ক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক সুনীল বড়ুয়াসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন অধ্যাপক নীলোৎপল বড়ুয়া ও রোজিনা আক্তার রোজী। আলোচনা শেষে বেতারের শিল্পীদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সংগীতানুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।