গর্জনিয়ায় পুলিশ পরিদর্শক আনিছঃ ‘বীট পুলিশিংয়ের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা হবে সমস্ত অপরাধ’

হাফিজুল ইসলাম চৌধুরীঃ
কক্সবাজারের রামুর গর্জনিয়া ও কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের অপরাধ নিয়ন্ত্রণে চালু হয়েছে বীট পুলিশিংয়ের।

গর্জনিয়া ইউনিয়নের পোয়াংগেরখিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মিলনায়তনে মঙ্গলবার (২১ জানুয়ারি) বিকেলে ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নং বীটের আলোচনা সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বরত পরিদর্শক মো. আনিছুর রহমান বলেন, বীট পুলিশিং সন্ত্রাসী কার্যক্রমসহ সব অপরাধ প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। পুলিশি সেবা আরও গতিশীল ও কার্যকর হবে। বীট পুলিশিংয়ের ফলে গর্জনিয়া-কচ্ছপিয়ার প্রতিটা এলাকা, অপরাধী এবং অপরাধের প্রকৃতি সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে। এ ছাড়া এলাকার গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ও বিভিন্ন বিষয়ে তথ্য ভাণ্ডার তৈরি হবে। ফলে অপরাধ দমন ও রহস্য উৎঘাটন সহজ হবে পুলিশের জন্য। কক্সবাজারের মান্যবর পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন ও রামু থানার ওসি মো. আবুল খায়ের মহোদয় বীট পুলিশিং বিষয়ে প্রতিনিয়ত দিকনির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছেন।

গর্জনিয়া ইউনিয়ন বীট পুলিশিং সমন্বয় কমিটির সভাপতি নুরুল আলম এমইউপির সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক হাফিজুল ইসলাম চৌধুরীর প্রানবন্ত পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন- গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) হুমায়ুন কবির, ইউনিয়ন বীট পুলিশ সমন্বয় কমিটির উপদেষ্টা সদস্য হাবিব উল্লাহ চৌধুরী, আয়ুব সিকদার, গর্জনিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি মোহাম্মদ ইউছুপ, ৭, ৮ ও ৯ নং ওর্য়াডের নারী সদস্য আন্জুমান আরা বেগম, ইউপি সদস্য মনিরুল আলম, মুফিজুর রহমান, ৮ নং বীটের সভাপতি সরওয়ার কামাল, গর্জনিয়া ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা তানজীদ রায়হান, আওয়ামী লীগ নেতা জহির উদ্দিন প্রমূখ।