মস্তিষ্ক সুস্থ রাখার ব্যায়াম

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ
শরীর সুস্থ রাখতে যেমন শারীরিক পরিশ্রম জরুরি তেমনি মস্তিষ্ক কর্মক্ষম রাখতেও মস্তিষ্কের ব্যায়াম প্রয়োজন।

অনেকেই ‘সুডোকু’, ‘ক্রসওয়ার্ডস’ ইত্যাদি খেলেন নিয়মিত যাতে মস্তিষ্কের চর্চা হয়। তবে যাদের এমন অভ্যাস নেই তাদের জন্য আছে অন্য উপায়। আর তা হল, শরীরচর্চা।

স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদনের আলোকে জানানো এমন কিছু শরীরচর্চা সম্পর্কে যা শরীর ও মস্তিষ্কের জন্য উপকারী।

দৌড়ানো:
মস্তিষ্কের ‘হিপোক্যাম্পাস’ অংশে নতুন কোষ সৃষ্টিতে উপকারী ভূমিকা রাখে দৌড়ানো। নতুন কৌশল শেখা ও স্মৃতিশক্তির জন্য মস্তিষ্কের এই অংশই দায়ি। মস্তিষ্কের ‘হিপোক্যাম্পাস’ উন্নত হলে মানসিক চাপ সামলানোর ক্ষেত্রে মস্তিষ্ক আরও শক্তিশালী হয়ে ওঠে। মস্তিষ্কের স্বাভাবিক কার্যাবলী সম্পাদন ও যেকোনো কিছু মুখস্ত করার ক্ষমতাও বাড়ে এই শরীরচর্চার মাধ্যমে।

অ্যারোবিকস:
মস্তিষ্কের সুস্বাস্থ্যের জন্য আরেকটি উপকারী ব্যায়াম হলো ‘অ্যারোবিকস’। সপ্তাহের ১৫০ ঘণ্টা মৃদুমন্দ ‘অ্যারোবিকস’ শরীরচর্চার অনুশীলন মস্তিষ্কে যোগাবে বিভিন্ন উপকারিতা। যেমন, ‘স্পেশিয়াল মেমরি পারফরমেন্স’ বাড়াতে এবং মস্তিষ্কের বিভিন্ন রোগ যেমন- স্মৃতিভংশ, হতাশাগ্রস্ততা, মানসিক অস্বস্তি ইত্যাদি ঝুঁকি কমাতেও ‘অ্যারোবিকস’ কার্যকর।

সাইকেল চালানো:
মস্তিষ্কে রক্ত সঞ্চালন বাড়ে সাইকেল চালানোর মাধ্যমে, যা মস্তিষ্কে নতুন কোষ তৈরিতে সাহায্য করে এবং তার কার্যক্ষমতা বাড়ায়। যাদের উচ্চ রক্তচাপ আছে তাদের জন্য সাইকেল চালানো বিশেষ উপকারী। কারণ এতে মস্তিষ্কের রক্ত সঞ্চালন বাড়লে মানসিকভাবে রোগী শক্তিশালী হবে, মন-মেজাজ ভালো থাকবে। পাশাপাশি এই শরীরচর্চার মাধ্যমে মানসিক চাপ সৃষ্টিকারী হরমোন ‘কর্টিসল’ এবং ‘অ্যাড্রেনালিন’য়ের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে।

ধ্যান:
মস্তিষ্ক ভালো রাখার ক্ষেত্রে ‘মেডিটেইশন’ বা ধ্যান করার চাইতে উপকারী অনুশীলন খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। এতে মন শান্ত থাকে, মনোযোগ বাড়ে। মানসিক চাপ সামলানোর অত্যন্ত শক্তিশালী মাধ্যম এই ধ্যান।

সূত্রঃ বিডিনিউজ