রামুতে সাংবাদিক হাফিজের উদ্যোগ : স্বেচ্ছাশ্রমে এক কিলোমিটার সড়ক মেরামত

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
কক্সবাজারের রামুতে দুই শতাধিক লোকজনের স্বেচ্ছাশ্রমে এক কিলোমিটার কাচা সড়ক মেরামত করা হয়েছে। বুধবার (১৫ জানুয়ারি) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত রামু-উখিয়ারঘোনা-গর্জনিয়া সড়কের অবহেলিত লিওছরি এলাকায় এই সড়ক মেরামত করেন তাঁরা।

স্বেচ্ছাশ্রমে সড়ক মেরামতকাজে নেতৃত্বদেন গর্জনিয়ার পোয়াংগেরখিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি, সাংবাদিক হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী। সহায়তা করেন স্থানীয় ইউপি সদস্য মু্ফিজুর রহমান, যুবলীগনেতা এমরান, ব্যবসায়ী আলী হোসেন ও জাগের আহমদ।

গর্জনিয়াবাসী বলেন, রামু-উখিয়ারঘোনা-গর্জনিয়া সড়ক সচলের জন্য প্রানপণ চেষ্টা চালিয়েছেন গর্জনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের পাঁচ বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান তৈয়ব উল্লাহ চৌধুরী। তাঁর স্বপ্ন আজ বাস্তবায়নের পথে! এই সড়কটি পুরোদমে চালু হলে গর্জনিয়া থেকে রামুর দূরত্ব কমে আসবে। স্থানীয় বাসিন্দারা ব্যবসাসহ সকল ক্ষেত্রেই লাভবান হবেন। সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমলের সুনজর পড়লেই সড়কটি আলোর মূখ দেখবে।

স্বেচ্ছাশ্রমে নেতৃত্বদানকারী হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন- রামু-উখিয়ারঘোনা-গর্জনিয়া সড়কের অবহেলিত এক কিলোমিটার কাচা সড়ক স্বেচ্ছাশ্রমে মেরামত করা হয়েছে। গর্জনিয়ার পাঁচবারের সফল চেয়ারম্যান তৈয়ব উল্লাহ চৌধুরীর স্বপ্ন ছিলো এই সড়ক সচল করবে। গর্জনিয়ার মানুষ রামু দিয়ে রামু সদরে পৌঁছাবে। তাঁর এই অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করার জন্য কক্সবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমলের দৃষ্টি কামনা করছি।

ছাত্রলীগনেতা ইকবাল হোসাইন স্বাধীন বলেন- গর্জনিয়ার তরুণ সমাজসেবক হাফিজুল ইসলাম চৌধুরীর আহবানে ছাত্র এবং যুব সমাজ স্বেচ্ছাশ্রমে কাজ করেছে। আমরা সড়কটির উন্নয়নে সাংসদের হস্তক্ষেপ চায়।

ছাত্রলীগনেতা ইনজামাম উল হক চৌধুরী বলেন- রামু-উখিয়ারঘোনা- গর্জনিয়া সড়কটি চালু হলে গর্জনিয়াবাসী পৌঁছে যাবে এক উজ্জ্বল স্বপ্নের চূড়ায়। ব্যবসায়ী সোহেল রানা বলেন- এই সড়কটি পুরোদমে চালু হলে গর্জনিয়ার কৃষকদের পঞ্চাশ শতাংশ ট্যাক্স কমে যাবে।

স্থানীয় আব্দুল জলিল বলেন- অল্প সময়ের মধ্যে রামু পৌঁছাতে হলে রামু-উখিয়ারঘোনা-গর্জনিয়া সড়কটি অত্যন্ত দরকার। সড়কটি সচল না থাকলে নাইক্ষ্যংছড়ি হয়ে রামু যেত এক ঘন্টা লাগে। অথচ সড়কটি দিয়ে গেলে সময় খরচ হবে মাত্র ২০ মিনিট।

যুবলীগ নেতা ওয়াহিদুল আলম চৌধুরী বলেন- হাফিজুল ইসলাম চৌধুরীর নেতৃত্বে এই সড়কে স্বেচ্ছাশ্রমে কাজ করতে পেরে আমরা আনন্দিত। এভাবে সকলে এগিয়ে এলে গর্জনিয়ার প্রত্যেকটি সড়কের উন্নয়ন বৃদ্ধি পাবে।