জেলায় শুভ আষাঢ়ী পূর্ণিমা পালিত: বৌদ্ধ বিহার গুলোতে পূজার্থীদের ভীড়

এম.এ আজিজ রাসেল:
ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যতার মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের শুভ আষাঢ়ী পূর্ণিমা। ১৯ জুলাই সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত শহরের বৌদ্ধ বিহার গুলোতে ভীড় করেন পূজার্থীরা। বিকেলে কেন্দ্রীয় মাহাসিংদোগ্রীর অগ্গমেধা, বড় ক্যাং, পিটাকেট, চেন্দামেজু, জিদারাম ও মোহাজেরপাড়া বিহার ঘুরে দেখা যায়, টানা তিন মাস বর্ষাবাসের ব্রতের প্রত্যয় নিয়ে সকলে বিহারমুখি হয়েছেন।

এসময় বিহার প্রাঙ্গণ মিলনমেলায় পরিণত হয়। সকলে একে অপরের সাথে কৌশল বিনিময় করেন। অনেকেই গ্রহণ করেন পবিত্র অষ্টশীল। ধর্মীয় গুরুরা আষাঢ়ী পূর্ণিমা নিয়ে বিশদ আলোকপাত করেন।

বাংলাদেশ রাখাইন স্টুডেন্ট কাউন্সিলের জ জ, জ জ ইয়ুদি, হাপু, মংসিয়ে, চ লাইন, ওয়ানশে, ববি ও জওয়ান জানান, আষাঢ়ী পূর্ণিমা বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ দিনে আমরা তিনমাস ব্যাপী বর্ষাবাসের শুভ সূচনা করি। এ মাসে আমাদের নিয়মিত ধর্মকাজে উৎসাহ বাড়ে।

রামু কেন্দ্রীয় সীমা বিহারের সহকারী পরিচালক প্রজ্ঞানন্দ ভিক্ষু বলেন, স্মৃতি বিজড়িত শুভ আষাঢ়ী পূর্ণিমা থেকে শুরু হওয়া বর্ষাব্রত আশ্বিনী পূর্ণিমা তিথিতে সমাপ্ত হয়। দীর্ঘ তিনমাস ব্যাপী দান, শীল এবং ভাবনা নিবিড়ভাবে অনুশীলনের এক সুবর্ণ সুযোগ বৌদ্ধরা এসময়ে লাভ করে থাকেন। সকলের উচিত এ সুযোগকে কাজে লাগানো।

এদিকে শহরছাড়াও জেলার রামু, উখিয়া, টেকনাফ, চকরিয়া, মহেশখালী, পেকুয়া ও কুতুবদিয়ায় যথাযথ ভাবে পালন করা হয়েছে শুভ আষাঢ়ী পূর্ণিমা।