গর্জনিয়ায় ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত স্কুল ছাত্র মেহেদীর পাশে জেলা পুলিশ

হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী :
‘ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত স্কুল ছাত্র আনিস আরমান মেহেদী বাঁচতে চায়’ শিরোনামে বিভিন্ন অনলাইন পোর্টাল ও পত্রিকার প্রতিবেদনটি কক্সবাজার পুলিশ সুপার (এসপি) এবিএম মাসুদ হোসেনের (বিপিএম) নজরে পড়েছে।

এসপির নির্দেশে মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) বিকেলে রামু উপজেলার গর্জনিয়া ইউনিয়নের পশ্চিমবোমাংখিলস্থ আনিস আরমান মেহেদীর ছোট্ট কুটিরে যান রামু থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আবুল খায়ের ও গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বরত পরিদর্শক মো. আনিছুর রহমান।

এসময় তাঁরা ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত গর্জনিয়া উচ্চবিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র আনিস আরমান মেহেদীর সার্বিক খোঁজখবর নিয়ে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন। পাশাপাশি জেলার মান্যবর পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে আর্থিকভাবে মেহেদীর পাশে দাঁড়ানোর প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

রামু থানার ওসি মো. আবুল খায়ের ও গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বরত পরিদর্শক মো. আনিছুর রহমান জানান- মেহেদীর পরিবার অত্যন্ত দরিদ্র। তার কঠিন চিকিৎসার জন্য বিপুল অর্থের প্রয়োজন। এসপি স্যারের নেতৃত্বে কক্সবাজার জেলা পুলিশ মেহেদীর পাশে থাকবে।

গর্জনিয়ার পোয়াংগেরখিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি সাংবাদিক হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী জানিয়েছেন- ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত শিক্ষার্থী আনিস আরমান মেহেদী বাঁচতে চায়। স্কুলে যাওয়া বা খেলাধুলা করার বদলে তার বেশিরভাগ সময় বিছানায় কাটে এখন। মেহেদী স্বপ্ন দেখে সুস্থ’ হয়ে বিদ্যালয়ে যাবে, বন্ধুদের সাথে খেলবে মাঠে। সবার মতো মেহেদীও হাসি-খুশি জীবন কাটাবে। দুরারোগ্য ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত স্কুল ছাত্র মেহেদী’র চিকিৎসা প্রয়োজন। তাঁকে ভারত নিয়ে যাওয়ার প্রচেষ্টা চলছে। চিকিৎসার খরচ জোগাতে সমাজের হৃদয়বান ও বিত্তশালী মানুষের সহায়তা চেয়েছেন মেহেদীর পরিবার। সাহায্য পাঠাতে অনুরোধ : সঞ্চয়ী হিসাব নম্বর-১০৮৩৪২২০২৭০৪২ ব্যাংক এশিয়া (গর্জনিয়া বাজার আউটলেট শাখা), রামু, কক্সবাজার।