চকরিয়ার ডাকাত ইনু বন্দুকযুদ্ধে নিহত, অস্ত্র উদ্ধার:

এ.এম হোবাইব সজীব,চকরিয়া:
কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারা এলাকার ডাকাত সরদার ইনু ও অপর এক ডাকাত দলের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে ইনু ডাকাত নিহত ও অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। রামু থানার ঈদগাহ্ পানের ছড়া ঢালায় বিবাদমান দুই ডাকাতদল ইনু ও অপর গ্রুপের মধ্যে বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত ইউনুছ প্রকাশ বনের রাজা ইনু (৪৫) চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজার পাগলির বিল গ্রামের মোঃ হোছাইনের ছেলে।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে ৪ টার দিকে রামুর ঈদগাহ-ঈদগড়্ পানের ছড়া ঢালায় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ব্যাপারে পরস্পর বিরোধি বক্তব্য পাওয়া গেছে, অপরদিকে ইনুর স্ত্রী জুবাইদা বেগম জানান, ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে দুই বিবদামান ডাকাত গ্রুপের মধ্যে বন্দুক যুদ্ধের ঘটনায় আমার স্বামী মারা যায় বলে পুলিশ বিভিন্ন গণমাধ্যমে জানায়।

index
ডাকাত সরদার ইনু

মুলত র‌্যাব আটক করে বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা সাজিয়ে আমার স্বামী ইনুকে গুলিবিদ্ধ করে নিহত করেছে বলে আমার মনে সন্দেহ। কিন্তু পুলিশ বলছে অপর পক্ষের ডাকাতের গুলিতে ইনু মারা গেছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার সময় তার নিজ গ্রাম ডুলাহাজারা ইউনিয়নের পাগলিরবিল এলাকা থেকে মোহাম্মদ ইউনুছ প্রকাশ ইনুকে প্রশাসনের একটি টিম আটক করে নিয়ে গেছে বলে তার পারিবারিক সূত্রে দাবি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, উল্লেখিত সময়ে একটি কালো নোহা গাড়ি প্রবেশ করে পাগলিরবিল গ্রামের একটি চায়ের দোকান থেকে ইনুকে তুলে নিয়ে যায়।

রামু থানার ওসি প্রভাষ চন্দ্র ধর আমাদের রামু ডটকমকে জানান, ইনু বাহিনী ও অপর এক বাহিনীর মধ্যে তুমূল বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঈদগাহ্-ঈদগড় পানের ছড়া ঢালায় পুলিশ ভোর রাত ৪ টার দিকে অভিযান চালায় এ সময় ডাকাতরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পিছু হটে। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মৃত ইনুকে উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে পরিত্যাক্ত ১টি বন্দুক উদ্ধার করা হয়।

কক্সবাজার সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল- চকরিয়া) কাজী মতিউল ইসলাম আমাদের রামু ডটকমকে জানান, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই ডাকাত দলের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত সর্দার ইউনুছ প্রকাশ ইনু নিহত হয়। পরে তার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। তিনি জানান, ইউনুছ একজন পেশাদার ডাকাত তার নামে ইনু বাহিনী নামে একটি ডাকাত দলও রয়েছে।