শারদীয় দুর্গাপূজার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন-বাথোয়াইচিং মারমা

শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে হিন্দু ধর্মালম্বী সকলকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে ” পার্বত্য চট্রগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর (উশৈসিং) এম.পি এবং লামা উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা এবং উৎসবের সফলতা প্রত্যাশা করেছেন লামা উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি বাথোয়াইচিং মারমা।

পূজা উপলক্ষে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি তার শুভেচ্ছা বানীতে বলেন, আগামীকাল (০৪ অক্টোবর) শারদীয় দুর্গোৎসব। সমাজে অন্যায়, অবিচার, অশুভ ও অসুরশক্তি দমনের মাধ্যমে শান্তিপ্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে এ পূজা হয়ে থাকে। এ উৎসব শুধু হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য নয়; বরং জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে আমাদের জাতীয় ঐক্য চেতনায় এটি একটি মহামিলনোৎসব। এই শুভ দিনে আমাদের “পার্বত্য জনপদে গর্ব, শান্তি, সম্প্রতি ও উন্নয়নের রূপকার নন্দিত জননেতা বীর বাহাদুর উশৈসিং এম.পি মহোদয় ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ লামা উপজেলা শাখার” পক্ষ থেকে লামা উপজেলাবাসীসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পরিচিত সবাইকে জানাই শারদীয় শুভেচ্ছা ও আন্তরিক অভিনন্দন। বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। এখানে আবহমানকাল থেকে একসঙ্গে হিন্দু, মুসলমান, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী মিলেমিশে বসবাস করে আসছে। বিশ্বে এ এক অনন্য ইতিহাস। যে দেশে, যে ভূখণ্ডে একসঙ্গে নানা জাতি, নানা বর্ণের লোক এবং নানা ধর্ম-সংস্কৃতির লোকের বসবাস- সেটাই আমাদের আসল পরিচয়। তাই তো প্রাচীনকাল থেকে আমরা পারস্পরিক সম্প্রীতির মেলবন্ধনে আবদ্ধ আছি। বাংলাদেশ ধর্ম-বর্ণ-নির্বিশেষে সকল মানুষের নিরাপদ আবাসভূমি। ‘ধর্ম যার যার, উৎসব সবার’ এ আপ্ত বাক্যে উজ্জীবিত হয়ে আমরা সবাই একসঙ্গে উৎসব পালন করব। ‘আমাদের সংবিধানে সকল ধর্ম ও বর্ণের মানুষের সমানাধিকার সুনিশ্চিত করা হয়েছে। আমি আশা করি, আবহমান বাঙালি হাজার বছরের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিতে ঋদ্ধ অসাম্প্রদায়িক চেতনা, পারস্পরিক ঐক্য, সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির বন্ধন অটুট রেখে সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়ন করা সক্ষম হবে। সকল সাম্প্রদায়িক ভেদাভেদ ভুলে হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান তথা সকল ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষ সকলেই এই উৎসবে সামিল হই। এর মাধ্যমে সকল ধর্মাবলম্বী মানুষের মধ্যে ভ্রাতৃত্বের বন্ধন আরো সুুদৃঢ় হবে। অসাম্প্রদায়িক দেশ গড়ার অঙ্গিকার নিয়ে একে অপরের পাশে দাঁড়াই। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি লামা উপজেলার আনন্দ উৎসাহের মধ্যদিয়ে এ উৎসবকে আরো আনন্দময় করে তুলবে বলে আমার প্রত্যাশা। শারদ উৎসবে সকলের সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করি।