রামুতে ইফার সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ বিরোধী র‌্যালী ও সমাবেশ: জঙ্গিরা ইসলাম ও দেশের শত্রু

সোয়েব সাঈদ:
রামুতে ইসলামিক ফাউন্ডেশন আয়োজিত সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরোধী সমাবেশে বক্তারা বলেছেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম। এখানে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের কোন স্থান নেই। তাই যারা বোমা মেরে নিরীহ মানুষ খুন করে ইসলাম কায়েমের কথা বলে, তারা মূলত ইসলাম ও দেশের শত্রু। এদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তোলা দেশের প্রতিটি নাগরিকের অবশ্য কর্তব্য।

আজ সোমবার, ১১ জুলাই সকাল ১০ টায় রামু উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত এ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন, রামু উপজেলা যুব উন্নয়ন অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের প্রতিনিধি মাহবুবুর রহমান।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, রামু প্রেস ক্লাব সভাপতি ও আওয়ামীলীগ নেতা নুরুল ইসলাম সেলিম, দৈনিক কক্সবাজার এর রামু প্রতিনিধি সোয়েব সাঈদ, দৈনিক ইনকিলাব প্রতিনিধি এম আবদুল্লাহ আল মামুন, রামু কাজী সমিতির সহ সভাপতি আবু বক্কর ছিদ্দিকী, জাতীয় প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ইমাম সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাওলানা রেজাউল করিম রিজভী, রামু উপজেলা পরিষদ জামে মসজিদের খতিব মাওলানা নুরুল হাকিম, রামু উপজেলা ওলামালীগ সাধারণ সম্পাদক মাওলানা এসএম জামাল উদ্দিন আনছারী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা সাইফুল্লাহ মো. ফোরকান, শিক্ষক জালাল উদ্দিন, ছাত্রনেতা খাজা মোহাম্মদ বাকী বিল্লাহ ও ইসলামিক ফাউন্ডেশন রামু উপজেলার সিনিয়র ফিল্ড সুপারভাইজার মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন খালেদ।

মডেল কেয়ারটেকার আবু বকর ছিদ্দিকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তারা আরো বলেন, ইমামরা হচ্ছেন সর্বজন শ্রদ্ধেয় নেতা। সুতরাং বোমাবাজ ও জঙ্গিবাদের প্রতিরোধ সর্বপ্রথম মসজিদ থেকেই শুরু হবে।

এজন্য ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক আগামী ১৫ জুলাই শুক্রবারকে জঙ্গিবাদ বিরোধী দিবস ঘোষনা করায় ইফার মহাপরিচালককে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। ওইদিন দেশের সকল মসজিদের ইমামকে ভেদাভেদ ভুলে দলমত নির্বিশেষে ঐক্যবদ্ধভাবে মুসল্লিদের জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সোচ্ছার করার আহবান জানান।

সভায় প্রধান অতিথি রামু-কক্সবাজার আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল এর পক্ষে বক্তব্য রাখেন, রামু উপজেলা ওলামালীগ সভাপতি মাওলানা নুরুল আজিম। তিনি বলেন, সারাদেশের মতো রামু-কক্সবাজারের মাটিতে কখনো সন্ত্রাসীদের স্থান হবে না। তিনি প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধু শেখ হাসিনা জঙ্গিদের প্রতিরোধে যেসব কর্মর্সূচি হাতে নিয়েছেন, তা সফল করতে আলেম সমাজকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসার আহবান জানান।

সমাবেশ শেষে রামু উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের প্রায় আড়াই শতাধিক ইমামের অংশগ্রহনে একটি র‌্যালী রামু উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে শুরু করে চৌমুহনী স্টেশন প্রদক্ষিণ করে। এসময় র‌্যালীতে অংশগ্রহনকারী ইমামগণ সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরোধী বিভিন্ন শ্লোগান দেন।