রামুতে পানিতে ডুবে প্রাণ হারালো মেধাবি ছাত্রী সোহা

সোয়েব সাঈদ:
রামুতে পানিতে ডুবে প্রাণ হারিয়েছে মেধাবি ছাত্রী মেহজাবিন বিনতে মান্নান সোহা। সোহা কক্সবাজার জেলা পরিষদের হিসাব রক্ষক আবদুল মান্নানের বড় মেয়ে।

সে কাউয়ারখোপ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী। আজ সোমবার, ১১ জুলাই বিকাল পাঁচটার দিকে বাড়ির পার্শ্ববর্তী পুকুরে পড়ে প্রাণ হারায় সোহা। মেধাবি এ ছাত্রীর মৃত্যুর খবরে এলাকাজুড়ে নেমে আসে শোকের ছায়া।

কাউয়ারখোপ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক তাজ উদ্দিন ও ইসমত জাহান নিনি আমাদের রামু ডটকমকে জানান, সোমবার বিকাল চারটায় বিদ্যালয় ছুটি হলে বাড়ি ফিরে সোহা। তারা খোঁজ নিয়ে জেনেছেন, বিকাল পাঁচটার দিকে সোহাকে না দেখে লোকজন খোঁজাখুজি শুরু করে। এক পর্যায়ে পার্শ্ববর্তী পুকুর পাড়ে সোহার স্যান্ডেল দেখে লোকজন পুকুরে তাকে খোঁজাখুজি শুরু করে। সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় ওই পুকুর থেকে সোহাকে উদ্ধারের পর কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক সোহাকে মৃত ঘোষনা করেন।

শিক্ষকরা আরো জানান, এবারের পিএসসি পরীক্ষার্থী সোহা ছিলো খুবই মেধাবি ছাত্রী। তার রোল নাম্বার ২। এমন মেধাবি শিক্ষার্থীকে হারিয়ে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা গভীর শোকাহত হয়েছে।

উল্লেখ্য, মেহজাবিন বিনতে মান্নান সোহা রামুর কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার ও আওয়ামীলীগ নেতা মনির আহমদের নাতনী এবং বিশিষ্ট ছড়াকার কামাল হোসেনের ভাতিজি।

মঙ্গলবার, ১২ জুলাই সকাল দশটায় কাউয়ারখোপ কেন্দ্রিয় জামে মসজিদ সংলগ্ন মাঠে মেহজাবিন বিনতে মান্নান সোহা’র নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হবে।

মেধাবি ছাত্রী মেহজাবিন বিনতে মান্নান সোহার অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন ছড়া বিষয়ক লিটল ম্যাগাজিন ছড়ুয়া’র সম্পাদকীয় উপদেষ্টা কবি এম সুলতান আহমদ মনিরী, ছড়াকার দর্পণ বড়ুয়া, প্রকাশক খালেদ শহীদ, প্রধান সম্পাদক সোয়েব সাঈদ, সম্পাদনা সহযোগি জাহিদ রুমান, ওবাইদুল হক নোমান, জাহাঙ্গীর আলম প্রমূখ।

তারা মহান আল্লাহপাকের দরবারে মেধাবি ছাত্রী সোহার আত্মার মাগফেরাত কামনা করেছেন এবং শোকাহত পরিবার পরিজনের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।