অরুণ সেনের কবিতা

কবি অরুণ সেন চট্টগ্রামের বোয়ালখালী থানার ধলঘাট গ্রামে ১৯৫৮ সালের ৩০ জুলাই জন্মগ্রহণ করেন। বসবাস করতেন চট্টগ্রামেই। তিনি ‘ঋতপত্র’ নামে একটি সাহিত্য পত্রিকা সম্পাদনা করতেন। চট্টগ্রামের এই প্রিয়মুখ কবি অরুণ সেনের গ্রন্থসমূহ হচ্ছে- শঙ্কায় নিনাদে শঙ্খ, বাইরে রেখে পা, শেষ বিকেলের কড়ানাড়া, রুদ্র গেছে রোদের বাড়ি, বুকে তার মুকুন্দরামের হাট, কে মানুষ পলাতক বুকে কাঁদে, ভাল আছ সোনালু ফুল, অনেক ভুলের প্রতিবেশী, অথচ নীরবতা, ছড়ায় ছড়ায় কথার নাচন।

কী আশ্চর্য

কী আশ্চর্য, কী আশ্চর্য দ্যাখো–
কী যে ব্যস্ত, ছদ্মবেশ তৈরিতে অসংখ্য দর্জি!
হাওয়া বলছে, বলুক না, কুম্ভীরাশ্রুর প্লাবণে ভেসে যাচ্ছে দেশ
তাই বলে, এভাবে কী, রাজনীতির ঘাড়ের উপর উঠে বসবে অন্ধকার!
আর অমা হবে আততায়ী সাধারণ মানুষের!

ওই ভদ্রমহিলা তো ঢাকা যাচ্ছিলেন
বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত ছেলেকে দেখার জন্য
যে ছেলে ওনার সাজানো স্বপ্নকে মাটিতে নামাবে
উনি একটি একটি করে ছুঁয়ে দেখবেন স্বপ্নের সব অঙ্গ-প্রত্যঙ্গকে
বহুদিন পর মনের ভেতর লুকানো জ্যোৎস্নায়
ছেলেকে সিনান করাবেন।
অথচ হঠাৎ সব লণ্ডভণ্ড করে দেয় পেট্রোলের বোমা
পথ বাধ্য হয় বিপথের আচরণে

হাসপাতালে বার্ন-ইউনিটে মমতার শেকল বাঁধা ছেলেকে
দেখছিলেন আর যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছিলেন মা
এ-কান্না ঘৃণায় নাকি জল্লাদের কান পর্যন্ত স্পর্শ করেনি
ভদ্র মহিলা যখন কাতরানোর যন্ত্রটিকে ফুটো করে বেরিয়ে গেলেন
মমতার কারাগার থেকে
এদিকে তখন হাসপাতালে নিস্তব্ধতা ফোঁপাচ্ছিল
মানুষের প্রতি মানুষের ভালোবাসা-কামনায়