রামু থানা পুলিশের মাদক বিরোধী সাঁড়াশি অভিযান

আমাদের রামু রিপোর্টঃ
রামুতে ছোলাই (বাংলা) মদের হাট নামে খ্যাত চেরাংঘাটা এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করেছে রামু থানা পুলিশ। ২ জুন রবিবার বিকেলে রামু থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আবুল মনসুরের নেতৃত্বে পুরো থানার পুলিশ এ অভিযানে অংশ নেয়। পুলিশের ৫টি টিম বিভক্ত হয়ে চেরাংঘাটা এলাকার প্রতিটি ঘরে তন্ন তন্ন করে মদ ও বিভিন্ন মাদকের খোঁজে ব্যাপক তল্লাশি করে। যদিওবা এসময় কারো কাছে কোন প্রকার মদ পাওয়া যায়নি।

তবে পুলিশের আগাম উপস্থিতি টের পেয়ে কে বা কারা চেরাংঘাটার একটি বাড়ির নলকুপের ড্রেনে কিছু সংখ্যক মদ ঢেলে দিয়ে পুলিশের ভয়ে গা ঢাকা দেয়। অভিযান চলাকালে নর্দমায় ছড়িয়ে পড়া মদ থেকে চারিদিকে দূর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে বলে জানান রামু থানা পুলিশ।

 

রামু থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ আবুল মনসুর আমাদের রামু ডটকম কে জানান, রামুতে যোগদান করার পর থেকে এবারসহ তিনবার চেরাংঘাটা এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করেছি। গতবার এ এলাকা থেকে বিপুল সংখ্যক বাংলা মদ উদ্ধার ও মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হয়েছে। তবে এবার কোন মদ পাওয়া যায়নি। তিনি এটাকে সাফল্য বলে মনে করছেন। তিনি বলেন, মাদকের ক্ষেত্রে কোন আপোষ নয়, বর্তমান সরকার মাদক নির্মূলে অত্যন্ত কঠোর অবস্থানে। রামুকে মাদকমুক্ত করতে প্রতিনিয়ত এ অভিযান অব্যাহত থাকবে। পাশাপাশি মাদক নির্মূলে তিনি এলাকার জনগনকে পুলিশকে সহযোগীতা করার অনুরোধ জানান।

এব্যাপারে চেরাংঘাটা এলাকার সাব্বির আহমদ আমাদের রামু ডটকম কে জানান, রামুর বাংলা মদের স্বর্গরাজ্য নামে পরিচিত চেরাংঘাটা রাখাইন পল্লী ও আশপাশের এলাকায় অতীতের তুলনায় মদ ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের দৌরাত্ম অনেকটা কমেছে। এলাকার মানুষ অনেকটা স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছেন। অভিযান চলাকালে এলাকার শতশত জনসাধারণ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে প্রবিত্র রমজান মাসে মাদেেকর বিরুদ্ধে পুলিশের এ অভিযানকে সাধুবাদ জানিয়েছেন রামুর সচেতন মহল।