মানুষের পরিচয়

সাম্প্রতিক ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় কবি মুহম্মদ নূরুল হুদার কবিতা।

মুহম্মদ নূরুল হুদা:

সংযত হও, সংহত হও, সঙ্ঘবদ্ধ হও
মানুষ, তুমি তো মানুষের শিশু, অমানুষ তুমি নও
মানুষ, তুমি তো জনক-জননী, হীন-জল্লাদ নও
মানুষ, তুমি তো সৃষ্টির সেরা, অধম অজীব নও
মানুষ, তুমি তো স্রষ্টার সূত, ঘাতক পাতক নও।

তোমার আকাশে হাসুক তাহলে একফালি মিহি চাঁদ
সংযম শেষে মানুষের মনে আনন্দ-আহ্লাদ
তোমার আকাশে হাসুক তাহলে দ্বিতীয়ার শাদা চাঁদ
সংযম শেষে মানুষের মনে শান্তি-সুখের স্বাদ
সংযম-চ্যুত অমানুষ শুধু গুণবেই পরমাদ।

হাতে হাত রেখে কাঁধে কাঁধ রেখে বুকে বুকে ধুকপুক
দাঁড়াও মানুষ বাড়াও মানুষ সুখে-দুখে উন্মুখ
ধর্মমানুষ কর্মমানুষ বর্মমানুষ তুমি
যে নামেই ডাকি : মালেক-মাধব-কনফুসিয়স-রুমী;
দাঁড়াও মানুষ বাড়াও মানুষ বুকে রাখো খোলা বুক।

এখন তোমাকে দখল করেছে কদাকার ইবলিস
এখন তোমোকে হালাক করেছে হানাদার ইবলিস
এখন তোমকে হাওলা করেছে সর্বনাশের বিষ
তোমাকে নিয়েই খেলেছে এখন কুৎসিৎ এক খেলা
মানুষ, তোমাকে হতে হবে আজ নির্ভীক, নির্বিষ।

ডানে আর নয়, বামে আর নয়, পুবে-পশ্চিমে নয়
দাঁড়াও মানুষ হাতে হাত রেখে দশদিগন্তময়
বাড়াও মানুষে পায়ে পায়ে আজ চির-ভারসাম্যময়
মিথ্যার হোক সলিল-সমাধি, সত্যের হোক জয়
ঘোর সংসারে, ঘরে ও কবরে স্নিগ্ধ চন্দ্রোদয়।

সংযত হও, সংহত হও, সংবৃত হও তুমি
মানুষ, তোমার মুক্ত নিবাস আকাশ-সাগর-ভূমি।
ছিন্ন করো হে সৃষ্টিবিরোধী শয়তানী সব ফাঁদ,
তোমার আকাশে ভাসুক তাহলে ভারসাম্যের চাঁদ;
নৌকার মতো উঠুক সে দুলে
গগনে গগনে শাদা পাল তুলে
সওয়ারী তার আদম-হাওয়ার তাবৎ বংশধর :
মানুষ বানাক নিজ হাতে তার বিশ্বমানবঘর।

মানুষের বুকে স্রষ্টা-সৃষ্টি, মানুষেরা অব্যয়।
মানুষ জনক, মানুষ জননী, ঘাতক পাতক নয়।

মানুষ, তোমার বুকে আঁকা থাক মানুষের পরিচয়।

[বিডিনিউজ]