বদরখালীতে ফিল্ম স্টাইলে অপহরণের পর গলাকেটে হত্যা আওয়ামীলীগ নেতাকে

চকরিয়া প্রতিনিধি:
কক্সবাজারের চকরিয়া উপজলার উপকূলীয় ইউনিয়ন বদরখালী বাজার থেকে আওয়ামী লীগ নেতা নুরুল হুদাকে (৬০) ফিল্ম স্টাইলে অপহরণের পর গলাকেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে বদরখালী পুলিশ ফাঁড়ি থেকে ৫শ’ গজ দূরে লোমহর্ষক এ ঘটনা ঘটে।

নুরুল হুদা বদরখালী ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের মগনামাপাড়ার মৃত আবুল আহমদের ছেলে। তিনি বদরখালী বাজারের মা মণি ক্লথ স্টোরের মালিক এবং বদরখালী ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ছিলেন।

নিহতের ছেলে মো. শাহাজাহান আমাদের রামু ডটকমকে জানান, রাতে বাবা বদরখালী বাজারের ফেরী ঘাটে হোটেল মজিদিয়ায় চা খাচ্ছিলেন। এ সময় আড্ডায় তিনি ‘রাজাকারেরা দেশের শত্রু, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা কোনো রাজাকারকে রেহাই দেবেন না’ বলে মন্তব্য করেন। এ নিয়ে একই এলাকার নুর আহমদের ছেলে আবু বক্কর ছিদ্দিক প্রকাশ লম্বা ছিদ্দিক তার সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে আবু বক্কর ছিদ্দিক ও তার ৫/৬ জন সহযোগী দোকান থেকে একটি সিএনজিচালিত অটোরিক্সায় নুরুল হুদাকে তুলে নিয়ে যায়।

তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি বদরখালী নৌ- পুলিশ ফাঁড়িতে জানানো হয়। কিন্তু ৩০ মিনিটের মধ্যে রাত ১২ টায় তাকে বদরখালীর ৩ ব্লকের টোঁটিয়াখালী এলাকার কিল্লায় নিয়ে জবাই করে মৃত্যু নিশ্চিত করে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে রাতেই চকরিয়া সদর সার্কেলের এএসপি, চকরিয়া থানার ওসি (তদন্ত) কামরুল আজম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

গতকাল দুপুরে চকরিয়া থানার ওসি জহিরুল ইসলাম খান আমাদের রামু ডটকমকে জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের আটকের জন্য পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান ওসি।

উল্লেখ্য, নিহত নুরুল হুদা ও আবু বক্কর ছিদ্দিক পরস্পর চাচা-ভাতিজা। আজ শুক্রবার বদরখালীতে হত্যাকারীদের আটক করতে পুলিশ দফায় দফায় অভিযান চালানোর কারণে হত্যাকারী এলাকা ছেড়ে গা ঢাকা দিয়েছে বলে শোনা গেছে। হত্যাকারীদের এ হত্যাকান্ডকে পুঁজি করে একটি প্রভাবশালী মহল সাধারণ লোকজনকে আসামী করার মিশনে নেমেছে বলেও সাধারণ লোকজন জানান।